,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

‘অনেক ডিসি-এসপি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানে না’

mokঢাকা,০৪ ডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম) :: অনেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পুলিশ সুপার (এসপি) মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানে না বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতা পরবর্তী ২৯ বছর অন্যান্য সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে পাঠ্যপুস্তকে ইতিহাস বিকৃতি করায় তারা (ডিসি-এসপি) মুক্তিযুদ্ধের সঠিক সম্পর্কে ধারণা নিতে পারেনি। গত ২৯ বছর আমরা ক্ষমতায় না থাকায় তারা (বিএনপি-জামাত-জাতীয় পার্টি) ইতিহাস বিকৃতি করেছে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা ওড়ে না সে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিন।’

১১ নং সেক্টরের মূল কেন্দ্রবিন্দু ঐতিহাসিক কামালপুর মুক্তদিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় মন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

সকালে জেলা ইউনিট ও উপজেলা ইউনিট আয়োজিত কামালপুর কো-অপারেটিভ হাই স্কুল মাঠে স্থাপিত মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ থেকে এক র‌্যালি বের করে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধে এসে শেষ হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ মাঠে কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হক বাবুল চিশতীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, ‘১১ নং সেক্টর ধানুয়া কামালপুরের ইতিহাস পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। আগামী বছরের জুলাই মাস থেকে বিনামূল্যে সকল মুক্তিযোদ্ধাকে চিকিৎসা দেওয়া হবে। সারাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্থানগুলো সংরক্ষণ করা হবে। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় অমুক্তিযোদ্ধা চাকরি নিয়েছে তাদের চিহ্নিত করা হচ্ছে।’ শিগগিরই কামালপুর স্থলবন্দর হিসেবে পূর্ণতা লাভ করবে বলেও ঘোষণা দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।

অনুষ্ঠোনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি, ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, পাট ও বস্ত্র মন্ত্রী মির্জা আজম এমপি।

প্রধান আলোচক হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোর্শেদ খান বীরবিক্রম।এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন সাবেক সংস্কৃতি ও তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ এমপি, জেলা প্রশাসক শাহাবুদ্দিন খান, পুলিশ সুপার মো. নিজাম উদ্দিন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমা-ার বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম খোকা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজ উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নার্গিস পারভিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর মোহাম্মদ, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয়, ধানুয়া কামালপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল প্রমুখ।

আলোচনা শেষে সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মতামত...