,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বহনকারি বাসগুলোর বেপরোয়া গতি থামাবে কে?

সিতাকুন্ড সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআই ইউসি)’র শিক্ষার্থী পরিবহন বাসগুলো প্রায় দুর্ঘটনা ঘটছে, শিক্ষার্থীরা হতাহত হচ্ছে। অথচ কারো যেন কোনো মাথা ব্যথা নেই। কিছুদিন আগে এই প্রতিষ্ঠানের বেপরোয়া গতির একটি বাস দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে এক ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যুর দৃশ্য সবাইকে নাড়া দিয়েছিল। সেই ঘটনার মতোই বুধবার ২৯ নভেম্বর কুমিরা ক্যাম্পাসের কাছেই আরেকটি বাস দুর্ঘটনা কবলিত হয়। বেপরোয়া গতির এই বাসটিও আইআইইউসির কুমিরা ক্যাম্পাস এলাকায় একইদিক থেকে যাওয়া (ঢাকা অভিমুখী) গ্যাস সিলিন্ডারবাহী একটি ট্রাককে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে বাসটির সামনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়। ট্রাকটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনায় একজন শিক্ষার্থী আহত হলেও ভাগ্যক্রমে বড় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

দুর্ঘটনা কবলিত ঐ বাসের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ট্রাকটিতে থাকা সিলিন্ডার যদি বিস্ফোরণ হতো তবে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো। আল্লাহ রক্ষা করেছে।

জানা গেছে, বিভিন্ন সূচি অনুযায়ী শহর থেকে বেশ কিছু বাস শিক্ষার্থীদের সীতাকুণ্ডের কুমিরা ক্যাম্পাসে আনা–নেয়া করে। এ কাজের জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৫০টি নিজস্ব বাস আছে। ভাড়ায়ও চলে ৩০–৪০টি। ভাড়ায় চলা গাড়িগুলোই চলে বেপরোয়াভাবে। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ এই বাসগুলোর ড্রাইভারেরা লাগামহীনভাবে গাড়ি চালায়। কোনো কথাই শোনে না। ঝুঁকি আর আতংকে থাকে শিক্ষার্থীরা। বুধবার ৮.৩০ মিনিটে এ দুর্ঘটনার পর চালক যথারীতি পালিয়ে যায়। শিক্ষার্থীরা পায়ে হেঁটে ক্যাম্পাসে গেলেও দুর্ঘটনার কারণে ঐদিনের নির্ধারিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। শিক্ষার্থী–অভিভাবকদের আবেদন আইআইইউসি কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেন বেপরোয়া এসব বাস চালকের লাগাম টানেন।

মতামত...