,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ভারত-বাংলাদেশ ৯ দিনের সংহতি অনুষ্ঠান শুরু

‘আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস: দুই বাংলার মেলবন্ধন’ স্লোগানকে সামনে রেখে ৯দিন ব্যাপী ভারত-বাংলাদেশ ‘সংহতি’ অনুষ্ঠান রবিবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর থেকে শুরু হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কোলকাতা সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ ও বঙ্গ সাহিত্য সমিতি যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মশাল প্রজ্বলনের মাধ্যমে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে প্রতি বছর এই সংহতি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগের চেয়ারপার্সন ড. লীনা তাপসী, বাংলাদেশ-ভারত-পাকিস্তান পিপল্স ফোরামের প্রতিনিধি ভানুরঞ্জন চক্রবর্তী, ফ্রেন্ডস ফর বাংলাদেশ-এর কো-অর্ডিনেটর এ এস এম শামসুল আরেফিন, সংহতি-২০১৭ এর আহ্বায়ক দীপন দাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মহান ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষায় তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। বাংলা ভাষা সঠিকভাবে শিখতে হবে এবং শুদ্ধরূপে বাংলা বলতে ও লিখতে হবে। বিশ্বায়নের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে অন্য ভাষাও শেখা দরকার, তবে বাংলাকেই অগ্রাধিকার দিতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যে ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ভাষাগত সংহতি বিরাজ করছে। দু’দেশের মানুষের মধ্যে বিরাজমান সম্পর্ক আরও নিবিড় করতে এখন মনের সংহতি দরকার।

আলোচনা পর্ব শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কোলকাতা সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ ও বঙ্গ সাহিত্য সমিতির যৌথ উদ্যোগে সংহতি পদযাত্রা বের করা হয়। পদযাত্রায় কোলকাতা সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজের ৫জন শিক্ষার্থী, বঙ্গ সাহিত্য সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। পদযাত্রাটি কোলকাতা সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে গিয়ে শেষ হবে।

মতামত...