,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন পেতে প্রার্থীদের লবিং হাটহাজারীতে

aহাটহাজারী সংবাদ দাতা, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম,  আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন পেতে হাটহাজারীর বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রার্থীরা লবিং শুরু করেছেন। উপজেলা কংবা জেলা নয় কেন্দীয় নেতাদের কাছেও ধরনা দিচ্ছেন প্রার্থীরা ।

উপজেলায় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ ও বৃহত্তর রাজনৈতিকদল বিএনপি দলীয় ভাবে নির্বাচন করতে প্রচারণা চালাচ্ছে। প্রার্থীরা বিভিন্ন সমাজিক অনুষ্ঠানে ব্যাপক ভাবে যোগদান করে জন সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করছে। দুই বড় রাজনৈতিক দল ছাড়াও  অন্য দলের প্রার্থীরাও  জোর তৎপরতা চালাচ্ছে।।

হাটহাজারী সংসদীয় এলাকা থেকে নির্বাচিত সাংসদ ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ মহাজোটের এমপি হওয়ায় কোন কোন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তার আশির্বাদ নিতেও প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। বিশেষ করে দুই বড় দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপি থেকে যারা মনোয়ন পাওয়া নিয়ে শঙ্কা বোধ করছে তারাও তার কাছে ধর্না দিচ্ছেন।  তিনি সবাইকে ভোটারদের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন।

বড় দুইটি রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী লবিং চালাচ্ছে  । এমনকি কেউ কাউকে ছাড় না দেওয়ার কথাও বলা হচ্ছে । নির্বাচনে জামায়াত ইসলামীর কোন প্রার্থীর নাম স্পষ্ট না হলেও দুই একটি ইউনিয়নের তারা স্বতন্ত্র প্রার্থী দিয়ে নির্বাচন করার চিন্তাভাবনা  করার সাথে সাথে নিজেদের দলের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে।

১৪দল জোট হিসাবে নিরবাচন না করে এককভাব্রেনিরবাচন করার কারনে জোটের চন্তারা সুযোগের অপেক্ষায় আছে। তবে, স্থানীয় নির্বাচন হওয়ায়  ব্যক্তিগত, আত্মীয়তা, ব্যবসায়ীক সর্ম্পক ও বন্ধুত্ব আবদার কিছুতা হলেও নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে।

হাটহাজারী উপজেলায় ১টি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়ন রয়েছে। পৌরসভায় আপতত নির্বাচন হচ্ছে না। ১৪ টি ইউনিয়নের নির্বাচন নিয়ে এখন এলাকাবাসী নির্বাচনী উৎসবে মেতে উঠছে। হাটবাজারে চা দোকানে, পাড়ায়, মহল্লায় এবং গ্রামে গঞ্জের বাড়ি ঘরে এখন শুধু নির্বাচনী আলাপ আলোচনা চলছে। কোন দল থেকে কে মনোয়ন পাচ্ছে। গ্রহণ যোগ্য প্রার্থী মনোয়ন পাচ্ছে কিনা। সে বিষয় নিয়ে আলোচনা চলছে। নির্বাচনের পলিসি মেকারদের এখন পোয়াবার। সম্ভাব্য প্রার্থীরা পলিসি মেকারদের তাদের পক্ষে আনতে নানামুখী কৌশল করছে। সমাজের সর্দার বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দের কাছে প্রার্থীরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করছে মোবাইল ফোন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও সাক্ষাতে।

হাটহাজারী উপজেলার দুইটি ইউনিয়নে এবার দুইজন মহিলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। ১নং ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের বিগত ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী ও বিজীত প্রার্থীদের মধ্যে ভোট গণনা নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে।

মামলার এক রায়ে বিজীত প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। বিজয়ী প্রার্থী এ রায়ের ব্যাপারে উচ্চ আদালতে আপিল করলে বিজ্ঞ আদালত ছয় মাসের রায় স্থগিত ঘোষণা করেন। এ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে অনেকেই সংশইয়ের মধ্যে রয়েছেন।

এ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে- ১নং ফরহাদাবাদ ইউনিয়ন ইদ্রিছ মিয়া তালুকদার, মোঃ শওকতুল আলম, নাছির উদ্দীন, শাহাদাত ওসমান, জয়নাল আবেদীন, রহমত উল্লাহ, আবদুল মালেক, জহুরুল আলম। ২নং ধলই ইউনিয়ন মোহাম্মদ আলমগীর জামান, একরামুল হোসেন, আলী আব্রাহা দুলাল, সামশুল আলম, শফিউল আলম, হুমায়ন কবির, এজাহার মিয়া চৌধুরী, হাসান শহীদ মিলন ও জসিম উদ্দিন জিকু। ৩নং মির্জাপুর ইউনিয়ন নুরুল বাশর চৌধুরী, রহিম উদ্দিন চৌধুরী, ইছহাক মিয়া, সুলতানুল আলম চৌধুরী, নুরুল আবচার, ওয়াহিদুল আলম বকুল, এনাম উদ্দিন তালুকদার, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, এ এইচ এম আলী আকবর। ৪নং গুমানমর্দন ইউনিয়ন সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হাশেম,শাকের উল্লাহ চৌধুরী, মোঃ মজিবুল রহমান, জামাল উদ্দীন, নাজিম উদ্দীন, নুরুল আফছার, আকতার হোসেন। ৫নং নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়ন কামাল উদ্দীন চৌধুরী, নুরুল আমিন, এনামুল হক, হারুন অর রশিদ, মাওলানা মীর কাশেম, আলহাজ্ব সিরাজুল হক বাবুল, ডাক্তার মাহাবুবুল ইসলাম চৌধুরী, এজাহার মিয়া। ৬নং ছিপাতলী ইউনিয়ন আলী আকবর, মোহাম্মদ ইসমাইল, নুরুল ইসলাম মাস্টার, নুরুল এহছান লাবু, ইউচুপ কামাল, ওসমান গনি এনাম, শাহআলম, জয়নাল আবেদীন, মো: মনির, ডা:আবুল খায়ের মুজিবুল হক জীবন, শেখ খোরশেদুজ্জামান। ৮নং মেখল ইউনিয়ন মো: সালাউদ্দীন চৌধুরী, জাহাঙ্গীর আলম, আবু সৈয়দ মেম্বার, মো: এমদাদ,আকতার হোসেন। ৯নং গড়দুয়ারা ইউনিয়ন সৈয়দ মোঃ ফোরকান আহম্মদ,গিয়াস উদ্দীন, আলাউদ্দীন, সরোয়ার মোরশেদ তালুকদার, রিয়াজ মোরশেদ, মোহাম্মদ নোমান খাঁন, সৈয়দ আলী তালুকদার,বাদল চৌধুরী ও আবদুল মাবুদ। ১০নং উত্তর মার্দাশা ইউনিয়ন আলহাজ্ব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, এডভোকেট রফিকুল কাদের,কাজী মহসিন, কাজী আকতার হোসেন বাদল, ডা:ওমর ফারুক, মঞ্জুর হোসন চৌধুরী মাসুদ, নুরুল হুদা, জাকির হোসেন, শফিউল আলম ও সরোয়ার চৌধুরী।

১১নং ফতেপুর ইউনিয়ন জাকের হোসেন, শারমিন ইকবাল, সরোয়ার হোসেন, তসলিম হায়দার ও মো:হানিফ। ১২নং চিকনদন্ডী ইউনিয়ন এসএম মোরশেদ আলম চৌধুরী, মো: লিয়াকত আলী, মো: সেলিম বর্তমান চেয়ারম্যান, মোঃ সেলিম (সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান), আবু মনসুর চৌধুরী, হাজী মো: হেলাল, হাছানুজ্জামান বাচ্চু ও হেলাল উদ্দীন। ১৩নং দক্ষিণ মার্দাশা ইউনিয়ন আবুল হোসেন, আরমান আহম্মদ চৌধুরী, সরোয়ার চৌধুরী, মোহাম্মদ হোসেন মিয়াজি, ডা: নুরুল আলম, মো:মজিদ মেম্বার, নুরুল আমিন, কামাল উদ্দিন, আবু তাহের, কামাল উদ্দিন ও আকতার হোসেন। ১৪ নং শিকারপুর ইউনিয়ন আবু বক্কর সিদ্দিক, আব্দুল খালেক, আলী আকবর ও শেখ মহিউদ্দীন। ১৫নং বুড়িশ্চর ইউনিয়ন নুরসাত জাহান, আকতার হোসেন, বকতিয়ার, মোঃ রফিক, মহিউদ্দীন, খোরশেদ আলম চৌধুরী ও এহছান প্রমুখের নাম সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে শোনা যাচ্ছে। হাটহাজারী ২০১১ সালের ১৪ জুন নির্বাচন হয়েছিলো। এবার আগামী ৭ মে সম্ভাব্য ইউপি নির্বাচনের তারিখ রয়েছে।

 

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০১২/০০০১৮৮/পি

মতামত...