,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

উপকূল বাঁচলে চট্রগ্রাম বাচঁবে

পতেঙ্গা থেকে কুমিরা পর্যন্ত বেড়িবাঁধ সংস্কারে বৃক্ষরোপন জরুরী

sea crasমুঃ বাবুল হোসেন বাবলা, নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ বালির বস্তা দিয়ে শহর রক্ষা পতেঙ্গা বেড়িবাধ bnr ad 250x70 1রক্ষা করা সম্ভব  নয় এবং দুর্যোগপূর্ণ মুহুর্তে লোক দেখানো উন্নয়ন কর্মকান্ড করে বিশাল পরিবেশ বেষ্টিত পতেঙ্গা থেকে কুমিরা পর্যন্ত ২৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বেড়ী বাধঁ সংস্কারে চরম উদাসীন দেখিয়ে বিগত দিনের মতো এখনো নিরব রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড । বর্তমান সরকার পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত কে আধুনিক পযটন ঘোষনা করলেও কায্যতো কিছুই পরিলক্ষিত হচ্ছে না । আর দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনার অভাব এবং সিটি আউটার রিংরোড প্রকল্প করার কারণে বিগত দিনের চেয়েও বেশী ঝুকিতে রয়েছে পতেঙ্গা-হালিশহরের এলাকাটি । বেড়ী বাধেঁর উপর দু:পাশের অনেক বৃক্ষ কেটে ফেলায় পতেঙ্গা থেকে কুমিরা পর্যন্ত ২৩ কিলোমিটার এলাকা অরক্ষিত বলেই মতামত দেন একাধিক সংগঠক,সমাজ কর্মী, জনপ্রতিনিধি এবং এনজিও কর্তাগন ।তবে বিগত ২০১৪/১৫ইং সনে সাবেক কমিশনারের(আঃ বারেক) নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পর বিশাল এই বেড়িবাধের জন্য মাত্র এক কোটি টাকা উন্নয়ন বাজেট বরাদ্দ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড

সাবেক মেয়র .বি.এম. মহি উদ্দিন চৌধুরী বর্তমান পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিস ইসলাম মাহমুদ সরজমিনে পরিদর্শনঃ করে এই বাধের সব দিক দিয়ে উন্নয়নের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ বাজেট বরাদ্দ করে বৃক্ষবেষ্টিত এবং ভাল মানের স্লেব দিয়ে বেড়িবাধের সংস্কার করা বর্তমান সময়ের যুগান্তকারী দাবী বলে গেলেও এখনো পর্যন্ত সেই দাবী বাস্তবায়নে সরকারের গড়িমসি দেখে এলাকাবাসী খুবই হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ।

উত্তর পতেঙ্গার সাবেক কমিশনার আব্দুল বারেক কোংঃ সাংবাদিকদের জানান, ১৯৯১ সালে ২৯ এপ্রিল প্রলঙ্কারি ঘূর্ণিঝড়ে পতেঙ্গার অবস্থা কি হয়েছিল তা বিশ্ববাসী দেখেছিল। সে কথা মনে হলে এখনো ভয়ে আতঙ্ক অবস্থায় দিন যাপন করতে হয়।

তবে পূর্বে চেয়ে দ্বিগুণ আকারে বেড়িবাধ ভেঙ্গে যে কোন মুহুর্তে ভয়বহ বিপর্যয় ঘটে যেতে পারে। তিনি এলাকাবাসীর চাহিদার কথা বিবেচনা করে অতি দ্রুত বেড়িবাধ সংস্কার সহ নিকটস্থ এলাকায় সাইক্লোন সেন্টার এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবশ্যই জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় করে ক্ষতিগ্রস্থ অংশে দ্রুত উন্নয়ন কাজ করার জন্য অনুরোধ জানান। আমরা এর সংস্কারের জন্য দীর্ঘ আন্দোলন করেও সমন্বয় হীনতার অভাবে এর কাজ হচ্ছে না বলে মনে করছি। তাছাড়া প্রতিবছর আমি পতেঙ্গা হালিশহর ,বন্দর-ইপিজেড এলাকার বিভিন্ন সমাজিক সংগঠন নিয়ে বাধঁ সংস্কারের দাবিতে মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করে কতৃপক্ষের নজরে আনার চেষ্টা করে যাচ্ছি ।

৩৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন বলেন, উপকূল রক্ষার্থে বেড়ী বাধেঁর দু পাশে গাছ লাগালে নব-নির্মিত  সিটি রোডটি রক্ষা হবে আর ঘৃর্ণিঝড়-জলোচ্চাস থেকে চট্রগ্রাম শহর  কে রক্ষা করা সহ শিল্প-কলকারখান এবং মানুষের যান-মাল ,সম্পদ নষ্ঠ হওয়া থেকেও বাছঁবে ।তবে অবৈধ ভাবে অপরিকল্পিত কোন লোক যেন বেড়ী বাধে বসবাস করতে না পারে সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে ।

বন্দরের বাসিন্দা আবুল কালাম বলেন,৯১ থেকে২০১৬ইং ,দী র্ঘ ২৫ বছরে ওসরকারের উদাসীন হওয়াতে উপকূলবাসী কে রক্ষার বাধঁটি পা্রয় অক্ষিত করে যে,উন্নয়ন করছে তাতে যেকোন সময়ে মারত্মক দূর্যোগ ঘঠলে চট্রগ্রাম শহর রক্ষা সম্ভব হবেনা বলে মন্তব্য প্রকাশ করেছেন ।আর হালিশহরের আনন্দ পাড়া বেড়ী বাধের সংস্কার করে বন্দর এলাকাবাসীকে রক্ষার্তে এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে ইপিজেড এলাকার মুক্তিযুদ্ধা সন্তান হারুন বলেন,পতেঙ্গা-কুমিরা পর্যন্ত বেড়ীবাধেঁর দু:পাশে সারি সারি বৃক্ষ না থাকলে ঘৃর্ণিঝড়-জলোচ্চাস থেকে এই বিশাল বাধঁ রক্ষার আর কোন উপায় থাকবে না।তাই ম্যাক্রোভবৃক্ষ,রাবারগোটা,বাবলা,ইপিল ইপিল সহ লোনাপানি সহনীয় বেশিবেশি গাছ লাগাতে হবেই ।

২৯এপ্রিল স্মরণে পতেঙ্গাহালিশহরে কর্মসূচিঃ খেজুর তলা একতা সংঘের উদ্যোগে শুক্রবার দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা বেড়ী বাধঁ ভুমি পল্লিতে অনুষ্ঠিত হবে বলে সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সেক্রটারী নিজাম উদ্দিন, প্রমুখ। এছাড়া বন্দর ইপিজেডস্থ হালিশহর একাদশ ক্লাব ,যুব সাহিত্য ফোরামের উদ্যোগে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা  খতমে কোর আন পাঠ  এবং ২৯এপ্রিল স্মরনে পতেঙ্গা উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের স্মরণ সভা, একতা সংঘের উদ্যোগে মিলাম মাহফিল ও আলোচনা সভা, প্রত্যাশা ক্লাবের স্মৃতি চারণ অনুষ্ঠান ,দিন ব্যাপী পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে আলোখ্যচিত্র প্রদর্শণীর আয়োজন করা হবে বলে প্রেসবার্তা সূত্রে জানা গেছে ।

মতামত...