,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কক্সবাজারের মহেশখালীতে মাদ্রাসা ছাত্রীকে হামলাকারী অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার

কক্সবাজার সংবাদদাতা, ২ মার্চ,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: কক্সবাজারের মহেশখালীতে নবম শ্রেণীর মাদ্রাসা ছাত্রীর হামলাকারী কথিত মাদ্রাসা ছাত্র জাহেদুল ইসলামকে (২৬) দেশীয় অস্ত্র ও দুই রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার ভোরে উপজেলার কালারমারছড়া পাহাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে জাহিদকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে নাহিদা আক্তার কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেল (ওসিসি) বিভাগে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। গ্রেফতারকৃত জাহেদুল ইসলাম একই উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের হরিয়ারছড়া এলাকার মৌলানা লোকমান হাকিমের ছেলে


জানা যায়, বুধবার ভোর রাত্রে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশের নেতৃর্ত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কালারমারছড়ার পাহাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে কথিত প্রেমিক জাহেদুল ইসলামকে পুলিশ একটি দেশীয় তৈরী অস্ত্র ও দুই রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার করে।

ঘটনার বিবরণ ও আহত নাহিদার নাহিদার চাচী লুৎফুন্নেছা শেলী জানান,আহত নাহিদা আক্তার ও জাহেদুল ইসলাম সম্পর্কে একে অপরের বেয়াই-বেয়াইন হন। তাদের দু জনের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। এই বিষয়টি উভয় পরিবারের লোকজন জানতেন। কয়েকদিন আগে নাহিদার অন্যত্র বিয়ের প্রস্তাব আসে। এনিয়ে তাদের দুজনের মধ্যে তৈরি হয় বিরোধ। তিনি জানান, জাহেদের পরিবারের লোকজন এইচএসসি পাসের পর তাদের বিয়ে দেয়ার কথা বলে। কিন্তু তা নাহিদার পরিবার মানতে রাজি ছিল না। গত শনিবার নাহিদার অন্যত্র বিয়ের কথা পাকা করে তার পরিবার।এর জের ধরে শনিবার রাত সাড়ে ৭ টার দিকে নাহিদার সঙ্গে কথা বলে জাহেদ। এক পর্যায়ে প্রেমিক জাহেদ তাকে ধারালো ব্লেড দিয়ে তার মুখে ও শরীরে ক্ষত-বিক্ষত করে পালিয়ে যায় জাহেদ। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে নাহিদা। পরে এলাকাবাসি ও তার আত্সীয়স্বজন নাহিদাকে উদ্ধার করে প্রথমে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে পরে সোমবার কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।্বর্তমানে নাহিদা আক্তার কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেল (ওসিসি) বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার শরীরে ব্লেড জাতীয় ধারালো অস্ত্রের ৫টি আঘাত রয়েছে।এ ঘটনায় মাদ্রাসা ছাত্রী নাহিদার চাচা হেলাল উদ্দিন বাদী হয়ে জাহেদুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে ছয় জনের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মতামত...