,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কক্সবাজারে স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ! শিশুসহ ৩ গুলিবিদ্ধ

gun fightপেকুয়া সংবাদ দাতাঃ কক্সবাজার, পেকুয়ায় স্বামী-স্ত্রীর কলহ রূপ নেয় গুলাগুলিতে। গুলিবিদ্ধ হয়ে দেড় বছরের শিশুসহ ৩ ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। গুলিবিদ্ধরা হলেন আইয়ূব আলী (৩০), তার দেড় বছরের শিশু আবির ও স্কুল ছাত্র এমরান (১৮)। এ ঘটনায় এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আটক ব্যক্তির নাম আবদুস সালাম (৬০)। গতকাল উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের টেকপাড়া এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, স্থানীয় আবদুল কাদেরের পুত্র ইলিয়াছের (৩০) সাথে তার স্ত্রী বেবী আক্তারের (২৫) মধ্যে অমিলের কারণে বেশ কিছুদিন আগে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। এনিয়ে স্বামী পক্ষের সাথে স্ত্রী পক্ষের লোকজনের মধ্যে ইতোঃপূর্বে কয়েকদফায় হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনা ঘটে। এরই মধ্যে স্থানীয় সমাজপতি ইউনুস, নেজাম উদ্দিন, রফিক ও ছৈয়দ মিয়াসহ আরো কয়েকজন মিলে বিষয়টি নিয়ে সালিশে বসে। কিন্তু সালিশে কোন সুরাহা না হয়ে দু’পক্ষের মধ্যে পুনরায় হাতাহাতি হয়। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সালিশের পরদিন কোন কথাবার্তা ছাড়াই বিচারকদের একটি পক্ষ স্ত্রী বেবী আক্তারকে তার স্বামীর ঘরে তুলে দিয়ে আসে। এতে বুধবার বিকেলে দুপক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এসময় উভয়পক্ষ কমপক্ষে ১০ রাউন্ড গুলি বিনিময় করে বলে জানান স্থানীয়রা।

গুলিবিদ্ধ শিশু আবীরের মা আফরোজা জান্নাত জানান, তার স্বামী আইয়ূব আলী শিশু সন্তানকে কোলে নিয়ে নিজের বসতভিটার পুকুর পাড়ে দাঁড়িয়ে দুপক্ষের মারামারি দেখছিলেন। এসময় দূর থেকে গুলি এসে তার স্বামী ও সন্তানের গায়ে লাগে। স্থানীয় মেম্বার শাহ আলম জানান, স্বামী স্ত্রীর ছাড়াছাড়ির ঘটনা থেকে দু’পক্ষের মধ্যে গুলাগুলি ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। কিন্তু মাঝখানে একজন অবুঝ শিশু ও নিরপরাধ মানুষ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তিনি আশংকা করে বলেন, সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যের কারণে এখন টেকপাড়া এলাকার মানুষের কোন নিরাপত্তা নেই। প্রশাসন হস্তক্ষেপ না করলে এ এলাকায় আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

পেকুয়া থানার ওসি (অফিসার ইনচার্জ) জিয়া মো: মোস্তাফিজ ভূইয়া জানান, স্বামী স্ত্রীর মনোমালিন্যের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিচারকদের মধ্যে দু’পক্ষ হয়ে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করেছে। এখনো পর্যন্ত আহতপক্ষের কেউ অভিযোগ করেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, পুলিশ সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

 

বি এন আর/০০১৬০০২০২৫/০০০১৫৪/এস

মতামত...