,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত দখল করে রোহিঙ্গা বসতি, নেপথ্যে প্রভাবশালীরা

কক্সবাজার প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: সম্প্রতি মিয়ানমারে নির্যাতনের কারণে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গারা এতদিন পাহাড় দখল করে আশ্রয় নিলেও এবার নতুন করে সমুদ্র সৈকতে বসতি গড়ে তুলছে। প্রতিদিন বালিয়াড়ি দখল করে তৈরি হচ্ছে নতুন-নুতন ঘর। অর্থ এবং দখলের উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের সৈকতে বসাতে সহায়তা করছে প্রভাবশালীরা।

মিয়ানমারে সহিংস ঘটনার জের ধরে মুসলমানদের উপর নির্যাতনের কারণে গত ৯ অক্টোবর থেকে হাজার হাজার রোহিঙ্গা টেকনাফ-উখিয়া সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। সেই থেকে তারা বনভূমি দখল করে পাহাড়ে আশ্রয় নিতে থাকে। বনবিভাগের শত শত একর ভূমিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে তারা বসতি গড়ে তুলেছে। এবার তারা নতুন করে সমুদ্র সৈকতের দিকে ঝুঁকে পড়ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, দরিয়ানগর সংলগ্ন সমুদ্র সৈকতে পুরানো কিছু বসতির আড়ালে নতুন নতুন বসতি ঘর তৈরি হচ্ছে। এসব ঘর জোয়ারের পানির কাছাকাছি চলে গেছে। ঘর নির্মাণে নিয়োজিত বার্মাইয়া শ্রমিক মোহাম্মদ জসিম জানান- ‘বার্মাইয়াদের পাহাড় থেকে চলে আসতে বলায় বিকল্প হিসেবে সৈকতে ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে নুরুল ইসলাম, নুরুল আলম, রেজাউল করিম, আবদুর শুক্কুরসহ কয়েকজন ব্যক্তি সৈকতে ঘর বসাতে সহায়তা করছে। গুরামিয়া নামের স্থানীয় এক ব্যক্তি জানান, প্রভাবশালী মহল জায়গা দখল করার জন্য রোহিঙ্গাদের ঘর বানিয়ে দিচ্ছে।’

রেজুখাল সংলগ্ন সমুদ্র সৈকতের ঝাউবনে শত শত পুরানো ঘরের সাথে নতুন নতুন ঘর তৈরি হচ্ছে। এখানের অর্ধ শতাংশ মানুষ রোহিঙ্গা। এসব পুরানো রোহিঙ্গারা নতুন রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ে সুযোগ করে দিচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক জেলে জানান- ‘কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ও পুরানো কিছু প্রভাবশালী রোহিঙ্গা সিন্ডিকেট করে অর্থের বিনিময়ে সৈকতের বালিয়াড়িতে তাদের আশ্রয় দিচ্ছে।’

মতামত...