,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কান্তজির মন্দির রক্ষার্থে এগিয়ে এলো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সেন্টার

KANTTAJIR MANDIRbnr ad 250x70 1মোঃ আরিফ জাওয়াদ, দিনাজপুর:- দেশের স্থাপত্য শিল্পের অন্যতম নিদর্শন দিনাজপুরের কান্তজির মন্দির অবহেলা-অযত্নে পড়ে থাকায়, তা রক্ষায় এগিয়ে এসেছে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সেন্টার। সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের অধীনে, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের তত্ত্বাবধানে চলছে মন্দিরের সংস্কার কাজ। সেই সাথে এ মন্দিরকে ঘিরে গড়ে উঠছে পর্যটন এলাকা। নির্মিত হচ্ছে যাদুঘর, হোটেল-মোটেল, শপিং মলসহ নানা স্থাপনা।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম জানান, পুণ্যার্থী ও পর্যটকদের আকর্ষণ করতে কান্তজির মন্দিরকে ঘিরে পর্যটন এলাকা গড়ে উঠেছে। এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে, সরকারি তত্ত্বাবধানে চলছে কান্তজিউ মন্দিরের সুরক্ষা ও সংস্কার কাজ।

উল্লেখ্য এই যে, দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নে ঢেপা নদীর তীরে অবস্থিত, টেরাকোটার অলঙ্করণে নন্দিত কান্তজির মন্দির। এটি নবরত্ন মন্দির নামেও পরিচিত কারণ তিন তলাবিশিষ্ট এই মন্দিরের নয়টি চূড়া বা রত্ন ছিল। এটি ১৮ শতকে নির্মিত একটি চমৎকার ধর্মীয় স্থাপনা। অতি সুন্দর ও ধারাবাহিকভাবে মন্দিরের দেয়ালে তুলে ধরা রামায়ণ, মহাভারতসহ পুরানে বর্ণিত বিচিত্র কাহিনী পর্যটক ও পর্যটন প্রিয় সাধারণ মানুষকে
বিমোহিত করে।

১৭২২ খ্রিস্টাব্দে মহারাজা প্রাণনাথ রায় মন্দিরের নির্মাণ কাজ শুরু করেন। আর মহারাজার মৃত্যুর পর তার পুত্র রাজা রামনাথ ১৭৫২ সালে এর নির্মাণ কাজ শেষ করেন।

১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে মন্দিরটি ভূমিকম্পের কবলে পড়লে এর চূঁড়াগুলো ভেঙে যায়। মহারাজা গিরিজানাথ মন্দিরের ব্যাপক সংস্কার করলেও মন্দিরের চূড়াগুলো আর সংস্কার করা হয়নি।

মতামত...