,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কাপ্তাই হ্রদে পানি ধারণ ক্ষমতার সর্বোচ্চ পর্যায়ে: ১৬ গেইট ৬ ইঞ্চি খুলে দেওয়া হয়েছে

kaptai-pdb-bad-de-waterমোঃ সাইফুল উদ্দীন, রাঙামাটি,বিডিনিউজ রিভিউজঃ  কাপ্তাই হ্রদে পানি এখন ধারণ ক্ষমতার সর্বোচ্চ পর্যায়ে। কয়েক দিনের টানা বর্ষণে উজান থেকে নেমে আসা পানির কারণে কাপ্তাই বাঁধ মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। ঝুঁকি এড়াতে কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ¯পীলওয়ের ১৬টি গেইট খুলে দেওয়া হয়েছে। প্রথমে ১৬টি সবকয়টি গেইট ৬ ইঞ্চি করে খুলে দেওয়া হলেও পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় এক ফুট পর্যন্ত গেইট খুলে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে সাতটা থেকে ৬ ইঞ্চি করে গেইট খুলে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে স্পীলওয়ে দিয়ে প্রতি সেকেন্ডে ৯ হাজার কিউসেক পানি ছাড়া হচ্ছে।

কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র সূত্র জানায়, হ্রদের পানি এক সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত হ্রদে পানি রয়েছে ১০৮.৫ এমএসএল(মিনস সী লেভেল)। পানির সর্বোচ্চ ধারণক্ষমতা ১০৯ এমএসএল। পর্যায়ক্রমে বিদ্যুৎকেন্দ্রের পাঁচটি ইউনিট ব্যবহার বুধবার ১৯০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়েছে। তবে এই কেন্দ্রের সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৩০ মেগাওয়াট। পাঁচটি ইউনিটের একটি ইউনিট পুরোপুরি ব্যবহার করতে না পারায় পানি থাকা সত্ত্বেও সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছে না।

কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক মোঃ আবদুর রহমান জানান, হ্রদে রুলকার্ভ অনুযায়ী স্বাভাবিক নিয়মে ১০৬.৫ এমএসএল পানি থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে পানি আছে ১০৮.৫ এমএসএল। অর্থাৎ স্বাভাবিকের চেয়ে দুই ফুুট পানি বেশি রয়েছে। হ্রদে পানি ধারণ ক্ষমতা ১০৯ ফুট। এ উচ্চতা অতিক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিলে বাঁধ রক্ষায় অতিরিক্ত পানি ¯পীলওয়ে দিয়ে ছেড়ে দিতে হয়। তিনি আরো জানান, উজান থেকে আসা পানির চাপ অধিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় কাপ্তাই বাঁধ মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। পানির চাপ কমাতে কেন্দ্রের ৫টি ইউনিট পর্যায়ক্রমে চালু রাখা হয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের কারণে অতিরিক্ত পানি বের হয়ে গেলেও উজান থেকে আসা পানির চাপ কমানো সম্ভব হচ্ছে না। অবস্থার উন্নতি না হলে পানি ছাড়ার পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পাবে।

এদিকে হ্রদে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় হ্রদ সংলগ্ন বিলাইছড়ি, লংগদু, জুরাছড়ি ও রাঙামাটির অনেক এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। এছাড়া স্পীলওয়ে দিয়ে পানি ছাড়ায় ইতিমধ্যে চট্টগ্রামের নি¤œাঞ্চলের অনেক স্থানে নতুন করে বন্যা সৃষ্টি হয়েছে।

মতামত...