,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কিডনি গ্রাম নেপালে

নেপালে অল্প কয়েকটি পরিবার নিয়ে গড়ে উঠেছে প্রত্যন্ত একটি গ্রাম। নিত্য দারিদ্রতা এই গ্রামের সঙ্গী। নাম কি345ডনি গ্রাম। সেখানে নাকি বেশির ভাগ মানুষই একটা কিডনি নিয়ে দিন যাপন করছেন! নবীন-প্রবীণ সকলেরই এক অবস্থা। কয়েক দশক ধরে গ্রামের চিত্রটা ঠিক এই রকম।

গ্রামের এক অধিবাসী জানান, গ্রামের এই পরিস্থিতির সুযোগ নিতে হাজির হয় এক দল অসাধু ব্যবসায়ী। না কোনো মাদক পাচারের জন্য নয়, কিডনির ব্যবসার জন্য! ওই ব্যবসায়ীরা গ্রামবাসীদের মোটা টাকার লোভ দেখিয়ে কিডনি বিক্রিতে উত্সাহ দিতে শুরু করে।

সেই ফাঁদে পা দেন গ্রামবাসীরা। শুরু হয় কিডনি বিক্রির হিড়িক। একটি কিডনি বিক্রি করে যদি হাতে মোটা টাকা আসে তাতে ক্ষতি কী! এই চিন্তা করেই কিডনি বিক্রির খাতায় নাম লেখাতে শুরু করেন যুবক-যুবতী থেকে বৃদ্ধরা।

কেউ হাতে পেয়েছেন লাখ টাকা, কেউ বা ৮০,০০০। গ্রামবাসী জানান, টাকার অঙ্কটা লাখ খানেকের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।

গ্রামের আর এক বাসিন্দা কেতন তামাঙ্গের ভাষায়, ‘ছোট্ট একটা অস্ত্রোপচার। দু’দিন পর ধরাই যাবে না যে শরীরের একটা অংশ বাদ গিয়েছে।’

আর এই কিডনি বিক্রিটা নাকি এখন প্রায় রীতিতে বদলে গিয়েছে। যখনই টাকার দরকার হয় বাড়ির কোনো না কোনো সদস্য কিডনি বিক্রি করেন।

তিনি আরো জানান, জীবনের ঝুঁকি তো রয়েইছেই, কিন্তু যেখানে মোটা টাকা পাওয়া যাচ্ছে, কিডনি বিক্রির হিড়িক বাড়বে না কেন!

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

মতামত...