,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কিশোরীর গর্ভে জন্ম নেয় সন্তান মামলা করায় নির্যাতন

বরগুনা প্রতিনিধি, বিডিনিউজ রিভিউজঃ দারিদ্রের মাঝেও ১২ বছরের কিশোরী চালিয়ে যাচ্ছিলেন তার পড়ালেখা। কিন্তু তার জীবনে হঠাৎই ছেদ পড়ে তাতে। একবার, দুবার নয়- তাকে চারবার ধর্ষণ করেছে বাবার বয়সী এক পাষণ্ড। পরে ওই কিশোরীর গর্ভে জন্ম নেয় এক সন্তান।

দক্ষিণের জেলা বরগুনার একটি মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী। বয়স ১২ বছর। মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার পথে প্রায়ই তাকে হয়রানি করতেন, জাফ্রাখালী গ্রামের প্রভাবশালী আবদুল মান্নান। বিষয়টি জানাজানি হলেও, মান্নানের প্রভাবের কারণে এর কোনো সুরাহা হয়নি। গরিব ঘরের মেয়ে বলে, এক পর্যায়ে নিজের সম্ভ্রম বাঁচাতে গ্রাম ছাড়েন ওই কিশোরী।

ঢাকায় এসে আশ্রয় নেন ফুফুর বাসায়। কিন্তু এখানেও মুক্তি নেই। ৪০ বছরের আবদুল মান্নান ঢাকায় এসে খুঁজে বের করেন কিশোরীকে। চারবার ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর, ছেলে সন্তানের মা হন তিনি। কিন্তু শিশুটির ভরণপোষণ এবং ভবিষ্যত নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

ঘটনার বিষয়ে মামলা করতে যান ওই কিশোরী। কিন্তু দেরি হয়েছে অজুহাতে মামলা নেয়নি বাড্ডা থানা পুলিশ।  ধর্ষণের অভিযোগে, গত ২৩ মার্চ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এ মামলা হয় আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে। এরপর ওই কিশোরীর পরিবারের ওপর নেমে আসে নির্যাতন।

তদন্তে মান্নানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায়, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেছেন, আসামি গ্রেপ্তার হলে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য আবেদন করা হবে।তার প্রত্যাশা, মামলাটি দ্রুতই নিষ্পত্তি হবে।

তবে বরগুনার পুলিশ সুপার বলছেন, এখনও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা তাদের এসে হাতে পৌঁছায়নি।

 

মতামত...