,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

কুটুম্ববাড়ি রেস্তোরাকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানাঃ পচাঁ,বাসি ও অস্বাহ্যকর খাবার পরিবেষণের অপরাধে

aকামরুল ইসলাম দুলু, প্রতিবেদক  বিডিনিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম নগরীর এ কে খান এলাকায় পচাঁ, বাসি, নষ্ট,অস্বাহ্যকর পরিবেশে বাসি মিষ্টি পাউরুটি পোড়া তেলে ইফতার সামগ্রী তৈরী করে বিক্রি করছিল আম্মান ফুড।চসিকের ম্যাজিষ্ট্রেট ফোরকান এলাহী রবিবার দুপুর ২ ঘটিকার সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ৫০ হাজার টাকা এ কে খান এলাকায় আম্মান ফুড কে নগদ জরিমানা করে।বাসী মিষ্টি, পাউরুটি, পোড়া তেল,ডালডা, বাসী ইফতার সামগ্রী নালায় ফেলে দেয়া হয়। একই এলাকায় কুটুম্ববাড়ী রেস্তোরায় অভিযান পরিচালনা করতে গেলে ষ্টোর রুম খুজেঁ পাওয়া যাচ্ছিল না । কুটুম্ববাড়ী ম্যানেজার কে জিজ্ঞাসা করা হলে অস্বীকার করে বলেন, আমরা দিনে এনে দিনে রান্না করি আমাদের ষ্টোর রুম নেই। শুরু হয় aষ্টোর রুম খুজাঁখুঁজি এক ঘন্টা পর রান্না ঘরের পিছনে পাওয়া যায় পচাঁ বাসী মরা মুরগীর ষ্টোর রুম।সরেজমিনে দেখা যায়, তিনটি বড় বড় ডিপ ফ্রিজে রয়েছে দীর্ঘদিনের পচাঁ বাসী, মাছ,কালো রক্ত জনিত মরা মুরগী বেশ কয়েকমাস আগে রাখা পুরানো হাসি ও গরুর মাংস,সব মাংসের মাঝে শেওলা পড়া অবস্থায় রয়েছে। সব পঁচা বাসী খাবার কুটুম্ববাড়ী রেস্তোরার সামনে রেখে শতশত সাধারন মানুষের মাঝে ম্যানেজার কে সর্তক করে ম্যাজিষ্ট্রেট বলেন, ভবিষৎতে এরকম অপরিস্কার বাসী খাবার নোংরা পরিবেশে খাবার যাতে বিক্রি না করে। এদিকে ফ্রিজে মরা মুরগী,পচাঁ বাসী মাংস কালো তেলে ইফতার তৈরী,মেয়াদহীন পাউডার সহ নোংরা ডালডা ঘি রাখার দায়ে ১ লক্ষ টাকা নগদ জরিমানা করে কুটুম্ববাড়ী রেস্তোরাকে। এদিকে এলাকাবাসী বলেন, আমরা এতদিন কি খেয়েছি আজ বুঝতে পেরেছি আজ অভিযান না হলে বুঝতে পারতাম না কখনো।উপরে ফিটফাট ভিতরে সদর ঘাট। এব্যাপারে
ম্যাজিষ্ট্রেট ফোরকান এলাহী বলেন,আমাদের এই অভিযান অব্যাহত ।

মতামত...