,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ক্ষতিপূরণ চাইছে ‘ঘড়ি বালক’ আহমেদ

নিজের তৈরি করা একটি ঘড়ি শিক্ষকদের দেখাতে স্কুলে নিয়ে গিয়েছিলেন আহমেদ মোহামেদ। শিক্ষকরা ঘড়িটিকে বোমা ভেবে ভুল করেন ও আহমেদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরবর্তীতে স্কুল কর্তৃপক্ষের দুঃখ প্রকাশ ও স্বয়ং প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছ থেকে হোয়াইট হাউজে বেড়ানোর নিমন্ত্রণ— এসব কিছু পুরো ঘটনা হলেও ইস্যুটি আবার নতুন করে উঠেছে। ক্ষতিপূরণ চাইছে ‘ঘড়ি বালক’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া আহমেদের পরিবার। ক্ষুদে উদ্ভাবক আহমেদের পরিবার এ ঘটনায় হয়রানির অভিযোগে নগর এবং স্থানীয় স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়েছে। এছাড়া আরভিং নগরের মেয়র ও পুলিশ প্রধানকে লিখিতভাবে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

আহমেদের পরিবারের একজন আইনজীবীর লেখা চিঠি স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। এতে বলা হয়েছে, ঘটনার আকস্মিকতায় ১৪ বছর বয়সী আহমেদ মানসিকভাবে প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছেন। এছাড়া আহমেদ ও তার পরিবার শারীরিক ও মানসিক যন্ত্রণার শিকার হয়েছেন। এ কারণে তারা আরভিং নগর কর্তৃপক্ষের কাছে ১ কোটি ও স্থানীয় জেলা স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে ৫০ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে। আইনজীবীরা জানিয়েছেন, ৬০ দিনের মধ্যে কোনো জবাব না পেলে দুই কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেয়া হবে।

গত সেপ্টেম্বরে বাতিল যন্ত্রপাতি দিয়ে নিজের তৈরি করা একটি ঘড়ি শিক্ষকদের দেখাতে নিয়ে যায় ম্যাকআর্থার স্কুলের নবম গ্রেডের শিক্ষার্থী আহমেদ। কিন্তু তার ঘড়িটিকে বোমা ভেবে পুলিশে খবর দিলে তাকে হাতকড়া পরিয়ে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার পরিহিত টি-শার্টে নাসার ছবি শোভা পাচ্ছিল— এ রকম একটি ছবি আহমেদের বোন টুইটারে প্রকাশ করলে তা ব্যাপক আলোচিত হয়।

আরভিংয়ের মেয়র বেথ ভন ডুয়াইন এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে ঘড়িটিকে ‘নকলবোমা’ উল্লেখ করেন। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের সময় আহমেদ সহযোগিতা করেনি বলে তিনি দাবি করেন। এদিকে চিঠিতে বলা হয়েছে, গ্রেফতারকালে আহমেদকে তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেয়া হয়নি। উপরন্তু স্বীকারোক্তিমূলক লিখিত বিবৃতিতে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করা হয়। স্কুলের প্রধান তাকে বহিষ্কারের হুমকি দিয়েছিলেন বলে জানানো হয়েছে।

১৪ বছর বয়সী আহমেদ বর্তমানে পরিবারের সঙ্গে কাতারের দোহায় রয়েছেন। কাতার ফাউন্ডেশনের দেয়া শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সামাজিক উন্নয়ন বিষয়ক শিক্ষাবৃত্তি নিয়ে তিনি সেখানেই পড়াশোনা করছেন। তবে তার পরিবার আবার আরভিংয়ে ফিরে আসতে চায় বলে জানানো হয়েছে। আরভিং জেলা স্কুলের একজন মুখপাত্র জানান, কর্তৃপক্ষ ক্ষতিপূরণের চিঠি পেয়েছে এবং তাদের আইনজীবীরা এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন। পিটিআই থেকে

মতামত...