,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

খালেদা আজ আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন

kaleda ziaনিজস্ব প্রতিবেদক,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃবিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া আজ মঙ্গলবার আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন, রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে বাসে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় তার  গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, খালেদা জিয়া আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই তিনি মঙ্গলবার (আজ) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ (১ নম্বর মহানগর বিশেষ ট্রাইব্যুনাল) কামরুল হোসেন মোল্লার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করবেন। পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্র গ্রহণ করে গত ৩০ মার্চ আদালত এ মামলায় খালেদা জিয়াসহ ২৮ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে।

পলাতকদের গ্রেপ্তার করা গেল কিনা- সে বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সেদিন ২৭ এপ্রিল তারিখ ঠিক করে দেন মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা। এ মামলার ৩৮ আসামির মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ার, তৎকালীন যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, আমান উল্লাহ আমান, শিক্ষক নেতা সেলিম ভূঁইয়াসহ ছয়জন জামিনে রয়েছেন। এছাড়া শহিদুল খান, লিটন, পারভেজসহ চারজন কারাগারে রয়েছেন। বাকি ২৮ জনের বিরুদ্ধে জারি করা হয়েছে পরোয়ানা।

 আজ খালেদা জিয়ার হাজিরা দেওয়ার সময় নেতাকর্মীদের আদালত চত্বরের রাস্তায় দাঁড়িয়ে একাত্মতা প্রকাশ করার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। সোমবার  বিকোলে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিএনপি ঢাকা মহানগর শাখার সমাবেশে তিনি এ আহ্বান জানান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মোশাররফ বলেন, মঙ্গলবার (আজ) খালেদা জিয়া সকাল নয়টায় ঢাকার জজকোর্টে মামলায় হাজিরা দিতে যাবেন। আপনারা সবাই একাত্মতা ঘোষণা কর?বেন। রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে নিরাপত্তা দেবো আমরা।

 খালেদার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সোমবার দেশের সব মহানগর ও জেলায় বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল দলটি।

উল্লেখ্য, গুলশানে নিজের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে গতবছর ৫ জানুয়ারি খালেদা জিয়া লাগাতার অবরোধ ডাকার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়ে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ শুরু হয়। এর মধ্যে ২৩ জানুয়ারি রাজধানীর যাত্রাবাড়ির কাঠের পুল এলাকায় গোরি পরিবহনের একটি বাসে পেট্রোল বোমা ছোড়া হলে অগ্নিদগ্ধ ও আহত হন ৩০ জন। এর মধ্যে নূর আলম নামে এক ঠিকাদার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও এলাকার পেচান গ্রামের বাসিন্দা দুই সন্তানের জনক নূর আলম ঢাকা থেকে বাড়িতে ফিরছিলেন। তার দেহের ৪৮ শতাংশ পুড়েছিল। এ ঘটনায় যাত্রাবাড়ি থানার এসআই কে এম নুরুজ্জামান দুটি মামলা করেন, যাতে অবরোধ আহ্বানকারী বিএনপি চেয়ারপারসনকে করা হয় হুকুমের আসামি।

১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫/২৫(ঘ) ধারায় করা মামলায় পেট্রোলবোমা নিক্ষেপের পরিকল্পনাকারী হিসেবে বিএনপির ১৮ নেতার নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া পরিকল্পনা বাস্তবায়নকারী হিসেবে যাত্রাবাড়ি বিএনপির ৫০ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়। তদন্ত শেষে গোয়েন্দা পুলিশ গত বছরের ৬ মে হত্যা মামলায় এবং ১৯ মে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় খালেদা জিয়াসহ ৩৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। এরপর চলতি বছর ২৮ জানুয়ারি বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলাটিও বিচারের জন্য ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হয়।

বি এন আর/০০১৬/০০৫/০০৪/০০০৪৮০৩/ এন

মতামত...