,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্যই নির্বাচনে বিএনপিঃমির্জা ফখরুল

ঢাকা,০৬ডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের অংশ হিসেবেই বিএনপি আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।

তিনি রবিবার দুপুরে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দিনকে দিন গণতন্ত্রের পরিধি সঙ্কুচিত হচ্ছে। সব প্রতিকূল জেনেও শুধুমাত্র গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য বিএনপি এই পৌর নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। এটি আমাদের আন্দোলনেরই অংশ।’

তিনি বলেন, ‘গণতান্ত্রিক রাজনীতির অবাধ সুযোগ না থাকলে দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটে। বাংলাদেশে সে পরিস্থিতিই তৈরি করা হচ্ছে।’

তবে সকল গণতান্ত্রিক শক্তি ঐক্যবদ্ধ হলে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করা সম্ভব হবে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

তিনি নির্বাচন কমিশনের কড়া সমালোচনা করেন। বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন পৌর নির্বাচনে নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে না। তারা দলীয় ইশারায় কাজ করছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকারের আমলের বিগত নির্বাচনগুলোতে আমরা নির্বাচন কমিশনের নির্লজ্জ ভূমিকা দেখেছি। তারা এখনো প্রশ্নবিদ্ধ।’

তিনি বলেন, ‘আমরা পৌর নির্বাচনে নিরপেক্ষতার চিহ্নমাত্র দেখতে পাচ্ছি না। নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের যে বিধি দিয়েছে তাতেও নিরপেক্ষতার লেশমাত্র নেই। এরপরও জনগণ ভোট দিতে পারলে এবং বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারলে অবশ্যই ভালো করবে।’

২০-দলীয় জোটের নির্বাচনে অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জনগণের ভোটাধিকার, মৌলিক অধিকার ও দেশে গণতন্ত্র ফিরে আনতেই বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।’

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘২০১৪ সালে জাতীয় নির্বাচন, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন ও উপজেলা নির্বাচন যেমন হয়েছে ঠিক তেমনি পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গত এক বছরে ৫৫ জন রাজনৈতিক নেতা গুম হয়েছেন। এছাড়া অনেকেই নিহত, আহত ও বিনা কারণে কারাবরণ করছেন। যারা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাদের প্রতি আমি শ্রদ্ধা জানাই।’

এর আগে বেলা পৌনে ১২টার দিকে নাশকতার অভিযোগে দায়ের মামলায় জামিনে মুক্তি পাওয়ার চারদিন পর দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় ও দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা তার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির বর্তমান মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সহ-দপ্তর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীমসহ অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ৩ নভেম্বর আত্মসমর্পণ করলে মির্জা ফখরুলের জামিন মঞ্জুর না করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় সিএমএম আদালত।

পরে হাইকোর্ট নাশকতার তিন মামলায় জামিন দেয়। আপিল বিভাগে জামিন বহাল থাকায় গত মঙ্গলবার কাশিমপুর কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান।

মতামত...