,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

গাছের সাথে শত্রুতা!

aমোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় সন্ত্রাসীরা এক গৃহস্থলীর ভিটে বাড়ির গাছ ও গাছের চারা কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব সন্ত্রাসীরা ভিটে বাড়ির বড় গাছ ধারালো দা’ দিয়ে কেটে ও ছোট চারাগুলো উপড়ে নিয়ে যায়।
১৫ জুন বুধবার বিকাল ৫টায় উপজেলার খাগরিয়া মোহাম্মদ খালী আব্বাসের পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে । এ ঘটনায় ভিটের মালিক সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৭ জনকে আসামী করে সাতকানিয়া থানায় একটি মামলা(মামলা নং-১৭) দায়ের করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, খাগরিয়া মোহাম্মদ খালী এলাকার মৃত সাচি মিয়ার ছেলে সিরাজুল ইসলাম তাঁর দুই পুত্র আবদুল হামিদ ও শহিদুল ইসলামের নামে কিছু জায়গা ক্রয় করেন। খরিদা জায়গা চারদিকে কাঁটা তারের ঘেরাবেড়া দিয়ে নিজ দখলিয় জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রোপন করেন। জায়গা ক্রয়ের পর থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বছর ভিত্তিক গাছ লাগানোর ফলে কিছু গাছ বড় হয়েছে। বাকী গাছ চারা আকারের ছোট। চারদিকে ঘেরাবেড়া দেয়া বিশাল বসত ভিটে গাছ বাগান সৃজন হলে এলাকার কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসীর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে। বাগানসহ ঘেরাবেড়া দেয়া জায়গাটি জবর দখলের জন্য তাঁরা উঠে পড়ে লাগে। অবশেষে গতকাল বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী জসিম উদ্দিন, আক্তারুজ্জমান, সেলিম উদ্দিন, শামসুল ইসলাম, মো. শাহজাহান, রিদুয়ানুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, মাহবুবুল আলম, সারোয়ার জামান, মো. ইমরান, আবু সামা, সাইফুল ইসলাম, মো. আলম, শাহ্ আলম, মো. জেবুল হোসেন, মো. মহসিন ওরফে ইমন ও মো. মাসুদ সংঘবদ্ধ হয়ে ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ঘেরাবেড়া ভাংচুর করে সিরাজের জায়গা থেকে সুজন করা বাগানের গাছ কেটে নিয়ে যায়।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বাগানের চারদিকে কাঁটাতারের ঘেরাবেড়ার কেটে দিয়েছে ও সীমানা পিলার ভেঙ্গে তচনচ করে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। বাগানের ভেতর ঢুকে দেখা যায়, ভরাট করা জায়গাটিতে বেশ কয়েকটি মাঝারি আকারের গাছ কেটে নেয়ার চিহ্ন থাকলেও চারার কোন চিহ্নই রাখেনি। শিখরসহ উপড়ে নিয়েছে তবে চারার রোপনের ছোট ছোট গর্ত এখনো রয়ে গেছে।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলতে কেউ খুব একটা মুখ খুলতে চায়নি। স্থানীয় কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জায়গাটি ক্রয় সুত্রে সিরাজুল ইসলামের। সিরাজুল ইসলাম খরিদ করেছেন হামলাকারীদের এক মূরসীর কাছ থেকে। তাঁদের মূরসীর জায়গা বাইরের লোক কিনেছে বলে সিরাজুল ইসলামের উপর হামলাকারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে এ কাজ করেছে।
যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাতকানিয়া থানার এসআই মাহবুবর রহমান জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও তদন্ত করে ভিটে থেকে কয়েকটি গাছ কাটার সত্যতা পাওয়া গেছে।
সাতকানিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো.ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, শত্রুতার বশে গাছ কেটে ফেলা এটা কোন ধরনের আচরন বুঝি না। মামলা হয়েছে আসামীদের আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মতামত...