,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

গুলশানে নিহত ৫ জঙ্গি বেওয়ারিশ লাশ হিসাবে সমাহিত হতে পারে

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ গুলশানের অভিজাত গুলশানে রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলার পর সেনা অভিযানে নিহত পাঁচ জঙ্গিকে সমাহিত করা হয়নি নয় দিনেও। কারণ, তাদের পরিবার মরদেহ নিতে আসেনি এখনো।

নিহতদের মধ্যে দুজনের পরিবার জানিয়েছে, তাদের লাশ নিজেরা দাফন করতে চান। তবে আর্থিক দৈন্যতার কারণে ঢাকা থেকে লাশ নিতে পারছেন না তারা। বাকিদের পরিবারের কাছ থেকে কোনও সাড়া মেলেনি।

গত ১ জুলাই অভিজাত রেস্তোরাঁয় হলি আর্টিজানে হামলার পরদিন সকালে সেনা অভিযানের পরপর সবার লাশ নিয়ে যাওয়া হয় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে। এরই মধ্যে জঙ্গিদের হাতে নিহতদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে স্বজনদের কাছে। তবে পাঁচ জঙ্গির লাশ রয়ে গেছে মর্গে।

আরও কিছু দিন স্বজনদের জন্য অপেক্ষা করার পর কেউ আগ্রহী না হলে লাশগুলো সমাহিত করতে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করা হতে পারে ।

প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই শুক্রবার রাত পৌনে নয়টার দিকে গুলশানের ৭৯ নম্বরের আর্টিজান রেস্তোরাঁয় ৮ থেকে ১০ জন যুবক অতর্কিত হামলা চালায়। এরপর তারা ওই রেস্তোরাঁয় থাকা লোকজনকে জিম্মি করে। জিম্মিদের মধ্যে অন্তত ২০ জন বিদেশি নাগরিকসহ ৩০-৩৫ জন আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরপর থেকে পুরো চার কিলোমিটার এলাকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ঘিরে রাখে।

অস্ত্রধারীদের হামলায় ডিবির সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল ইসলাম এবং বনানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সালাউদ্দিন নিহত হয়েছেন। আহত হন প্রায় ৩০ জন পুলিশ সদস্য। নিহত দুই পুলিশ কর্মকর্তা হলেন, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহউদ্দিন। আহতদের মধ্যে ১৯ জন গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

জঙ্গি হামলা চালিয়ে দেশি-বিদেশি নাগরিকদের জিম্মি করার ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

এই ধরনের অতর্কিত হামলা চালিয়ে মানুষজনকে জিম্মি করার ঘটনা বাংলাদেশে এটাই প্রথম।

 

মতামত...