,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

গোনাহ মাফের সর্বোত্তম ইবাদাত ‘সালাতুত তাসবিহ’ কি ভাবে পড়বেন

kabaনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ  সালাতুত তাসবিহ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ইবাদাত। যে নামাজে বারবার ‘সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদুলিল্লাহি ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার’ তাসবিহটি পড়া হয়, তাকে সালাতুত তাসবিহ বলেন। জীবনে অনন্ত একবার ফজিলত পূর্ণ এ নামাজ পড়া আবশ্যক। এ নামাজের ব্যাপারে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর চাচাকে সুসংবাদ দিয়েছিলেন। হাদিসটি আমলের নিয়তে তুলে ধরা হলো-

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত তিনি বলেন, একদিন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (আমার পিতা) হজরত আব্বাস ইবনে আবদুল মুত্তালিবকে বললেন, হে আব্বাস, হে চাচাজান! আমি কি আপনাকে দিব না, আমি কি আপনাকে দান করব না, আমি কি আপনাকে সংবাদ দিব না, আমি কি আপনার সাথে দশটি সৎকাজ করব না; (অর্থাৎ দশটি উত্তম তাসবিহ শিক্ষা দিব না) যখন আপনি তার আমল করবেন তখন আল্লাহ তাআলা আপনার আগের-পরের, পুরাতন-নতুন, সকল প্রকার গোনাহ, ইচ্ছাকৃত-অনিচ্ছাকৃত গোনাহ, ছোট-বড় গোনাহ, গুপ্ত ও প্রকাশ্য গোনাহ মাফ করে দিবেন?

আপনি চার রাকাআত নামাজ পড়বেন। প্রত্যেক রাকাআতে সুরা ফাতিহা পাঠ করবেন এবং যে কোনো একটি সুরা মিলাবেন। প্রথম রাকাআতে যখন কিরাআত পাঠ সম্পন্ন করবেন, তখন আপনি দাঁড়ানো অবস্থায় পনেরো বার বলবেন- ‘সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদুলিল্লাহি ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার’

অতপর রুকু করবেন। রুকু অবস্থায় (এ তাসবিহ) দশবার পাঠ করবেন।

অতপর রুকু হতে ওঠে সোজা হয়ে দাঁড়াবেন (দাঁড়ানো অবস্থায়) এ তাসবিহ দশবার পাঠ করবেন।

অতপর সিজদায় মাথা নত করবেন (সিজদা অবস্থায়) এ তাসবিহ দশবার পাঠ করবেন।

অতপর সিজদা হতে মাথা ওঠাবেন (দুই সিজদার মধ্যখানে বসা অবস্থায়) এ তাসবিহ দশবার পাঠ করবেন।

তারপর পুনরায় (২য়বার) সিজদায় যাবেন (সিজদা অবস্থায়) এ তাসবিহ দশবার পাঠ করবেন। এভাবে প্রত্যেক রাকাআতে এ তাসবিহ ৭৫বার হলো।

চার রাকাআত নামাজের প্রত্যেক রাকাআতে এভাবে করবেন। এভাবে যদি প্রত্যেকদিন একবার এ নামাজ পড়তে সক্ষম হন, তবে পড়বেন। আর যদি সক্ষম না হন, তবে প্রত্যেক জুমআর দিনে একবার পড়বেন। তাও যদি না পারেন তবে প্রতিমাসে একবার পড়বেন। তাও যদি না পারেন তবে প্রত্যেক বছর একবার পড়বেন। আর তাও যদি না পারেন তবে জীবনে অন্তত একবার পড়বেন। (আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ, বাইকাকি দাওয়াতুল কবিরের বর্ণনা করেছেন, তিরমিজি হজরত আবু রাফে হতে এ হাদিস বর্ণনা করছেন এবং মিশকাত)

সুতরাং অগণিত অসংখ্য নিয়ামাত ও কল্যাণ প্রদানের মাস পবিত্র রমজানে সালাতুত তাসবিহ পড়ে গোনাহ মাফের সুবর্ণ সুযোগ গ্রহণ ঈমানদারের একান্ত কর্তব্য। আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সালাতুত তাসবিহ নামাজ হাদিসের নিয়ম অনুযায়ী যথাযথভাবে আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

 

মতামত...