,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চকবাজারে পণ্য বদলে না দেয়ায় কর্মচারীকে ছুরিকাঘাত, দোকান মালিকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: চকবাজারে মতি কমপ্লেক্সে পণ্য বদলানোকে কেন্দ্র করে বোনের ডাকে ভাই এসে ছুরিকাঘাত করল দোকানদারকে। পেটের একপাশে ছুরিকাঘাতে লিটু চক্রবর্তী নামে ওই ব্যবসায়ী দোকানেই লুটিয়ে পড়েন। পরে পার্শ্ববর্তী দোকানদারদের সহায়তায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ এঘটনায় একজনকে আটক করলেও নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। আটকের আগে স্থানীয়রা তাকে গণপিটুনি দেয়। এতে সামান্য আহত ওই যুবককে উদ্ধার করে পুলিশ চমেক হাসপাতালে ভর্তি করে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, আটক যুবকসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে নগরীর চকবাজার থানার মতি কমপ্লেক্সের দ্বিতীয় তলায় নাফিজা ফ্যাশন নামে একটি বুটিকস হাউজে এ ঘটনা ঘটে। মতি কমপ্লেক্স ব্যবসায়ী সমিতির সহ–সভাপতি আবুল মনসুর জানান, একটি বুটিকসের দোকান নাফিজা ফ্যাশনে কাপড় বদলানোকে কেন্দ্র করে নাসরিন নামের এক ক্রেতার সাথে ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীর বাকবিতন্ডা হয়। এর এক পর্যায়ে ওই ক্রেতা মোবাইলে ফোন করে একদল সন্ত্রাসী ডেকে এনে দোকানে হামলা চালায়। দোকানের মালিক লিটু চক্রবর্তীকে ছুরিকাঘাত করে।

এরপরই বিকেল ৪টা থেকে ওই এলাকার মতি কমপ্লেক্স, মতি টাওয়ার, গোলজার টাওয়ার, চকভিউ মার্কেট, শাহেনশাহ মার্কেটের আনুমানিক ৫ শতাধিক ব্যবসায়ী গুলজার মোড়ে জড়ো হয়ে হামলায় জড়িতদের গ্রেফতারে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

এসময় ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা চেয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে গোলজার মোড় এলাকা। দীর্ঘক্ষণ ওই এলাকায় গাড়ি চলাচলও বন্ধ থাকতে দেখা গেছে। পরে পুলিশ এসে বিকেল সাড়ে ৫টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন শপ–ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আবুল কাশেম বলেন, যেখানে সন্ত্রাসীরা দোকানে ঢুকে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত করছে। সেখানে ব্যবসায়ীদের জীবনের নিরাপত্তা কোথায়? এবিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

আরেক ব্যবসায়ী বলেন, দোকানে এসে সন্ত্রাসী হামলা কোনভাবে মানা যায় না। এরআগেও বেশ কয়েকবার দোকানে ঢুকে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা হামলা করেছে। আমরা ইতিমধ্যে বিষয়টি পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েছি। পণ্য বদলানোকে কেন্দ্র করে বোনের ডাকে ভাই এসে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত করেছে জানিয়ে চকবাজার থানার এসআই পল্টু বড়ুয়া বলেন, নাসরিন নামে এক ক্রেতার সাথে নাফিজা ফ্যাশনের মালিকের বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে ওই মহিলাকে ব্যবসায়ীরা চোর বলে হেনস্তা করার চেষ্টা চালায়। এতে ক্রেতা তার ভাইকে ফোন করে বিষয়টি জানায়। বাকলিয়ার ছৈয়দশাহ রোড এলাকা থেকে তার ভাই ইমরানসহ আরও বেশ কয়েকজন এসে হামলা চালায় এবং ওই দোকানীকে ছুরিকাঘাত করে।

তিনি জানান, ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ইমরানকে ব্যবসায়ীরা ধরে গণপিটুনি দেয়। পরে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেও জানান এসআই পল্টু।

 ছুরিকাঘাতে আহত ব্যবসায়ী লিটু চক্রবর্তী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়েলিটি ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মোহাম্মদ আলাউদ্দিন তালুকদার।

মতি টাওয়ার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক ফিরোজ খান জানান, ঘটনার পর মতি টাওয়ার এবং মতি কমপ্লেক্সে দোকানপাট আর খোলেনি।

তিনি আরো জানান, এভাবে সরাসরি এসে মার্কেটের ভেতরে দোকান মালিককে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করার ঘটনা নজিরবিহীন।

মতামত...