,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামের রিয়াজউদ্দিন বাজারে নকল বৈদ্যুতিক তার তৈরির কারখানা

নিজস্ব প্রতিবেদন, বিডিনিউজ রিভিউজঃ  চট্টগ্রাম নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজারে নকল বৈদ্যুতিক তার তৈরির একটি কারখানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশ।

 রোববার ২ আক্টোবর রিয়াজ উদ্দিন বাজারের রহমতুন্নেছা রোডস্থ আল্লাহর দান মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় পুলিশ ওই কারখানার সন্ধান পায়। অভিযানে কারখানার কাউকে আটক করতে না পারলেও বেশ কিছু বৈদ্যুতিক তার জব্দ করা হয়। সিলগালা করে দেয়া হয় কারখানাটি।
নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) পরিতোষ ঘোষ উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, এ কারখানায় তৈরি তার দেশের চারটি পরিচিত ব্র্যান্ডের লোগো, সিল ও স্টিকার লাগিয়ে বাজারজাত করে আসছিল অসাধু চক্রটি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কারখানাটিতে অভিযান চালানো হয় জানিয়ে তিনি বলেন, কারখানার দরজা জানালা বন্ধ থাকায় ভেঙে ভেতরে ঢুকি আমরা। আমাদের অনুমান পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পেছনের দরজা দিয়ে সটকে পড়েছে কারখানার লোকজন। পরে পাশের আরেকটি গোডাউন থেকেও বিপুল পরিমাণ তার এবং কাঁচামাল জব্দ করা হয়। এই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, তারগুলো খুবই নিম্নমানের। কিন্তু তারগুলোর গায়ে চারটি প্রতিষ্ঠানের লেবেল লাগানোতে সাধারণ মানুষ তা ধরতে পারবে না। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট কিংবা আগুনের জন্য এই নিম্নমানের তারই কারণ হতে পারে বলে আমি মনে করছি।

সরেজমিনে দেখা যায়, রিয়াজউদ্দিন বাজারের কাঁচাবাজারে রহমতুন্নেছা রোডের ডানপাশের গলির শুরুর দিকে ‘আল্লাহর দান’ মার্কেট। রেয়াজউদ্দিন বাজারের একটু ভেতরে আল্লাহর দান নামের পুরোনো মার্কেট। দ্বিতল মার্কেটটির দক্ষিণের কোণে ৮ বাই ২০ হাতের একটি কক্ষ। এই কক্ষটিকেই কারখানা বানিয়ে ভেজাল বৈদ্যুতিক তার তৈরি করে আসছিল কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। কারখানাটির ভেতর ক্যাবল তৈরির বড় একটি যন্ত্র রয়েছে। কারখানাটির সামনে ও পেছনে দুটি দরজা ও এককোণে একটি জানালা রয়েছে। তবে কারখানাটির দেয়ালে কয়েকটি ছোট ছোট ফুটো সদৃশ্য দেখা গেলেও সেগুলো সিমেন্ট দিয়ে ভরাট করে দেওয়া হয়েছে। কারখানাটির যন্ত্রপাতি পর্যালোচনা করে বুঝা গেছে এখানে দীর্ঘদিন ধরে এভাবে ভেজাল বৈদ্যুতিক তার তৈরি করা হচ্ছিল। বৈদ্যুতিক তার তৈরি শেষে প্রসিদ্ধ চার কোম্পানির লেবেল লাগিয়ে বাজারজাত করছিল তারা। এই চারটি কোম্পানি হলো, ইস্টার্ন কেবলস লি., সুপারসাইন ইন্ডাস্ট্রিজ লি,বিআরবি কেবল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. ও বিবিএস কেবল ইন্ডাস্ট্রিজ লি.। এসব বৈদ্যুতিক তার এই কারখানায় তৈরি হলেও তারগুলোর গায়ে লাগানো লেবেলগুলোতে ওই চারটি প্রতিষ্ঠানের মূল কারখানার ঠিকানা লেখা ছিল।
কারখানার পাশের ঘরের ভাড়াটিয়া আবদুল আলিম বলেন, এ কারখানাটি দেখছি অনেকদিন ধরে। কখনও দরজা-জানালা খোলা দেখিনি। তবে ভেতরে লোকজনের আনাগোনা নিয়মিত টের পাওয়া যেত।

মতামত...