,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে আওয়ামীলীগের রাজনীতি ক্রমশঃ উত্তপ্ত হচ্ছে

mohiuনাছির মীর, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রামে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র  সোহেল খুনের ঘটনা উত্তাপ ছড়াচ্ছে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামিলীগের নগর রাজনীতিতে। আর দূরত্ব বাড়ছে, সাবেক মেয়র ও আওয়ামিলীগের মহানগর  কমিটির সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ও বর্তমান মেয়র মহাংর কমিটির   সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনের মধ্যে।

অভিযোগের তীর একে অপরের দিকে ছুড়ছেন প্রায় প্রতিদিন। যদিও, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, রাজনৈতিক নয়; কর্তৃত্ব নিয়ে অন্তর্কোন্দলে খুন হয় ওই শিক্ষার্থী।

চট্টগ্রামের শীর্ষস্থানীয় বেসরকারি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়। যেখানে গেল ২৯ মার্চ নৃশংস হত্যার শিকার হন, প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী নাসিম আহমেদ সোহেল।

প্রথমদিকে বিশ্ববিদ্যালয়টি পরিচালনার ভার সিটি কর্পোরেশনের হাতে থাকলেও আইনী প্রক্রিয়ায় সেই দায়িত্বে এখন সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর। এ নিয়ে বর্তমান মেয়রের সাথে একধরনের স্নায়ুদ্বন্ধ চলছে তার। সবশেষ সোহেল হত্যার পর পুরুনো সব দন্ধ আবার্ চরম  আকার ধারনকরতে পারে বলে ধারনা করছেন কেউ কেউ।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সোহেল হত্যাকে অরাজনৈতিক বললেও তা মানতে নারাজ মহিউদ্দিন চৌধুরী। তাঁর দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় দখল করতেই এই খুনের ঘটনা। আবার আ জ ম নাছিরও এটাকে বলছেন, পরিকল্পিত  খুনের ঘটনা। তাতে সরাসরি না হলেও উভয়ের অভিযোগ একে অন্যের দিকে।

ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে রাজনৈতিক তৎপরতা না থাকলেও ২৯ মার্চের ঘটনার শিকার আর জড়িত দুপক্ষই এই দুই শীর্ষ নেতার অনুসারী। তাই, দিন কয়েক আগে চট্টগ্রামে এক অনুষ্ঠানে দুই নেতাকে একসাথে বসার পরামর্শ দেন আওয়ামীলীগের এই কেন্দ্রীয় নেতা।

দুপক্ষ শান্ত হতে না পারলে নির্মম এই খুনের ঘটনার তদন্তও বাধাগ্রস্ত হতে পারে বলেও আশংকা রয়েছে ।

চট্টগ্রাম মহাংর আওয়ামীলীগের সাবেক ও বর্তমান মেয়রের সম্পর্ক অম্ল মধুর হলেও সম্প্রতিক সময়ে  দুজনের মধ্যে মধুর   আশাজাগানিয়া  সম্পর্ক দেখে আপ্লুত হয়ে ছিলেন ।

সোহেল হত্যা মামলায় ইতি মধ্যে ৫ জন ছাত্রলীগ নেতা -কর্মী পুলিশের হাতে আটক হয়েছে। তাদের রিমান্ড নিয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। আওয়ামীলিগ কি আবারো ছায়ার সাথে মল্লযুদ্ধ শুরু করছে মহানগরীতে, এমন আশ ংকা শুধিজনে!

 

বি এন আর/০০১৬/০০৪/০০৩/০০০৪৭৬২/ এন

মতামত...