,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে আদালতে পেশকারের ছুরিকাঘাতে স্টেনো আহত

policeনিজস্ব   প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃচট্টগ্রাম,  তুচ্ছ ঘটনায় আদালাতের দু সহকর্মীর মধ্যে অনাখাংকিত ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনা আদালাত পাড়ায় তক অব দি ডে রুপে আলোচনা হচ্ছে।  বেতন নিয়ে তর্ক-বিতর্কের জের ধরে স্টেনোগ্রাফার মোহাম্মদ সেলিমকে আদালতেই ছুরিকাঘাত করার অভিযোগ একই আদালতের পেশকার দিপঙ্করের বিরুদ্ধে।

রোববার দুপুর দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনালে এ ঘটনা ঘটেছে। আহত স্টেনোগ্রাফার মোহাম্মদ সেলিমকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা সেলিমের কপালে চারটি সেলাই দিয়েছেন। বর্তমানে আহত সেলিমকে তার বাসায় পৌঁছে দিয়েছেন সহকর্মীরা। তবে ঘটনার পর থেকে লাপাত্তা রয়েছেন পেশকার দীপঙ্কর।

এ ব্যাপারে থানায় কোন মামলা হয়নি বলে জানিয়েছেন কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন।

ঘটনা সম্পর্কে জানতে পেশকার ও স্টেনোগ্রাফার দুইজনের মোবাইলে ফোন করলে তাদের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির হোসেন জানান, স্ট্যানোগ্রাফার মোহাম্মদ সেলিমের মাথা থেকে রক্ত পড়তে দেখে তার রুমে যাই। গিয়ে তার কপালের দুটি স্থানে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন দেখতে পাই।

আমরা তাকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের নিয়ে গেলে ডাক্তার সেলিমের কপালে চারটি সেলাই করেন। পরে তাকে বাসায় পৌছে দেই। আদালতের কর্মকর্তাদের মধ্যে এ ধরনের ঘটনা এ প্রথম বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। এ ঘটনা আদালত অঙ্গনে বেশ আলোচিত হয় ।

ঘটনার সময় উপস্থিত আইনজীবী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, পেশকার দিপঙ্কর ও স্টেনোগ্রাফার মোহাম্মদ সেলিমের মধ্যে বেতন খাতায় রেডিনিউ স্ট্যাম্প লাগানো নিয়ে তর্কবিতর্ক , এরপর গালমন্দ ও দুজনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে দিপঙ্কর রুমে থাকা ছুরি দিয়ে সেলিমের দুই চোখের মাঝখালে আঘাত করেন বলে জানা গেছে। এসময় পাশের বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা এবং আশপাশের আইনজীবী সহকর্মীরা এগিয়ে এসে রক্তাক্ত সেলিমকে হাসপাতালে নিয়ে যান।

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০৭/০০০১০৫/পি

 

 

মতামত...