,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে আনসারুল্লাহ বাংলা টীমের নেতা লাদেন গ্রেপ্তার

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ এলাকা থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টীম ঠাকুরগাঁও অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ নেতা লাদেন ধরা পড়লো । তার পুরো নাম আবদুল হান্নান ওরফে আবদুল্লাহ ওরফে লাদেন (২১)। তিনি ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার বিদ্যুৎ কার্যালয়-সংলগ্ন সরকারপাড়ার ইমতাজুর রহমানের ছেলে। মায়ের নাম হাসনে জাহান। সে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। বৃহস্পতিবার রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে বায়েজিদ এলাকার একটি ভবন থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাঁকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেছে পুলিশ। সিএমপির মিডিয়া উইং ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) আনোয়ার হোসেন  বলেন, আবদুল হান্নান ওরফে লাদেন ওরফে আবদুল্লাহ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সক্রিয় সদস্য। তাঁকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বায়েজিদ থানাধীন কুলগাঁও এলাকার জামশেদ শাহ সড়কের রহমানিয়া মঞ্জিলের চতুর্থ তলার একটি কক্ষ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সেখানে একটি ল্যাপটপ, দুটি মোবাইল ফোন ও ১১টি উগ্রবাদী জিহাদি বই পাওয়া গেছে।

গোয়েন্দা পুলিশ ও থানা-পুলিশের কর্মকর্তারা লাদেনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, এবিটির কার্যক্রম জোরদার করতে রোজার ঈদের পর থেকে সে সহ পলাতক ‘জঙ্গিরা’ চট্টগ্রামে অবস্থান করছিল। অভিযানের আগ মুহূর্তে তার আরও সাত-আটজন সহযোগী পালিয়ে যায়। গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মো. লিয়াকত আলী বাদী হয়ে লাদেন এবং পলাতক তিন জঙ্গির নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও তিন-চারজনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে শুক্রবার বিকেলে একটি মামলা করেছেন। হান্নানের কাছ থেকে ল্যাপটপসহ ১৬ ধরনের আলামত জব্দ করা হয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) আনোয়ার হোসেন জানান, আব্দুল্লাহর বড় ভাই আবুল হাসনাত ঢাকা মেডিকেল কলেজের ছাত্র। কয়েক সপ্তাহ আগে ঠাকুরগাঁও থেকে চাপাতিসহ পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। উত্তরবঙ্গে বিভিন্ন সময়ে গ্রেপ্তার আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যরা জানিয়েছে, আব্দুল্লাহ তাদের দলের অন্যতম সদস্য। তিনি বলেন, পুলিশ উত্তরবঙ্গে খোঁজ শুরু করলে চট্টগ্রামে পালিয়ে এসে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার চেষ্টা করছিলেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন লাদেন ওরফে আব্দুল্লাহ। এখানে নিজেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরিচয় দিয়ে আরো কয়েকজনসহ সে রুম ভাড়া নিয়েছিল। অথচ সে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। তার আগে সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগে ভর্তি হয়ে এক বছর লেখাপড়া করেছিল। পরের বছর মেডিকেলে চান্স পেয়ে চলে আসে।

 

মতামত...