,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে ওসি মঈনুলের মামলা প্রত্যাহার

oc moinulনিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজনের হস্তক্ষেপে বিতর্কিত ওসি মঈনুল ইসলাম ভূঁইয়াকে ক্ষমা করে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আব্দুর রহিম জিল্লু।

রোববার (২৭ মার্চ) চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন দাখিল করেছেন।

২৩ মার্চ মারধর ও নির্যাতনের অভিযোগে আব্দুর রহিম জিল্লু বাদি হয়ে সদরঘাট থানার ওসি মঈনুল ইসলাম ভূঁইয়া, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো.সালেকসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন।  একদিন পর ওসি মঈনুলকে সদরঘাট থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করেন সিএমপি কমিশনার মোহা.আব্দুল জলিল মন্ডল।

মামলা দায়েরের চারদিন পর সেটা প্রত্যাহারের বিষয়ে জানতে চাইলে আব্দুর রহিম জিল্লু বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে জানান, ২৫ মার্চ রাতে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাসভবনে জিল্লুকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়।  সেখানে নগর আওয়‍ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান এবং ওসি মঈনুল ইসলাম ভূঁইয়া উপস্থিত ছিলেন।  ঘটনার জন্য ওসি মঈনুল মহিউদ্দিনের কাছে ক্ষমা চেয়ে  ওইদিনের ঘটনাকে ‘বোঝাবুঝির ভুল’ উল্লেখ করে তিনি অনুতপ্ত বলে জানান।

তখন  মহিউদ্দিন জিল্লুকে বলেন, মঈনুলের বাবা একজন ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা ছিলেন।  তার পিতার প্রতি সম্মান দেখিয়ে যেন মামলাটি প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

‘আমার নেতা মহিউদ্দিন ভাই এবং সুজন ভাই আমাকে মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন।  কেউ ভুল করে ক্ষমা চাইলে আল্লাহও তাকে ক্ষমা করে দেন।  এজন্য আমি মঈনুল সাহেবকে ক্ষমা করে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেছি।  আদালত আবেদন গ্রহণ করেছেন’ বলে জানান জিল্লু।

মতামত...