,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু’র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ বিতরণ করলেন মেয়র

bnr ad 250x70 1a

জাহেদ কায়সার, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, চট্টগ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু’র কড়াল গ্রাসে লন্ডভন্ড হওয়া চট্টগ্রাম নগরীর উপকূলীয় এলাকার পতেঙ্গা, ইপিজেড, বন্দর ও বাকলিয়া থানাধীন ১৭, ১৮, ১৯, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০ ও ৪১নং ওয়ার্ডের ক্ষতিগ্রস্ত নগরবাসীর দূর্গতি স্বচক্ষে দেখতে ২২ মে রবিবার, ভোরে ছুটে যান চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি কর্ণফুলী নদীর তীর ঘেষে ১৮ নং ওয়ার্ডের শীল ও জেলে পাড়ায়সহ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বাসিন্দাদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি নেভাল একাডেমী এলাকা, এয়ারপোর্ট এলাকা এবং সী-বিচ এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সাথে সাক্ষাত করে সমবেদনা জানান। এছাড়াও তিনি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ৪১নং ওয়ার্ডের ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরে ঘরে যান। পরে তিনি মহেষখাল এর উভয় দিকে বসবাসরত নাগরিকদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের কাছ থেকে অতি জোয়ারের পানি এবং মুশল ধারে বৃষ্টি হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার জলাবদ্ধতার বিষয়ে খোঁজখবর নেন। মেয়র বন্দর ও কাস্টমের aআবাসিক এলাকা এবং পশ্চিম নিমতলার অধিবাসীদের ঘরে ঘরে গিয়ে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে খোঁজখবর নেন এবং সমবেদনা জানান। সকাল থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত একটানা পরিদর্শনকালে মেয়র পায়ে হেঁটে হেঁটে ক্ষতিগ্রস্তদের দ্বারে দ্বারে যান এবং ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ক্ষতির বিষয়ে অবহিত হন। প্রলয়ংকরি ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ, বন্যা নিয়ন্ত্রন দেয়াল ও ক্ষতিগ্রস্ত সড়কসমূহও সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং মহেষখাল ও ওয়াইজের পাড়া খালের মাটি উত্তোলন কাজ প্রত্যক্ষ করেন। পরিদর্শনকালে সমবেত নগরবাসীর সাথে মতবিনিময়কালে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, নগরীর নেভাল একাডেমী থেকে মদুনা ঘাট পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর তীর ঘেষে বেড়িবাঁধ, রিংরোড, বন্যা নিয়ন্ত্রন দেয়াল ও সবগুলো খালের মুখে স্লুইচ গেইট নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, চট্টগ্রাম ৯ নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমদ বাবলুর সহযোগিতায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। নগরবাসীর স্বার্থে প্রায় ২ হাজার ৫ শত কোটি টাকা এ প্রকল্পে খরচ হবে। এ ছাড়াও জাপানের জাইকার অর্থায়নে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আউটার রিংরোড নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে এবং চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ কাট্টলী এলাকায় বে-টার্মিনাল নির্মাণ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এ সকল প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম নগরী সুরক্ষা হবে এবং জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে নগরবাসী রক্ষা পাবে। মেয়র ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক, লেইন, বাইলেইন, এয়ারপোর্ট রোড, নেভাল এভিনিউ সহ ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ, প্রতিরোধ দেয়াল নির্মাণে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করার কথা জানান। এ সময় চট্টগ্রাম ৯ নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমদ বাবলু, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারুন-উর রশিদ, ৪১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছালেহ আহমদ চৌধুরী, ৪০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী জয়নাল আবদীন, ৩৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ জিয়াউল হক সুমন, ৩৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, ৩৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শফিউল আলম সহ সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সমূহের আওয়ামীলীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন এবং সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মেয়রের সাথে ছিলেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন উদ্ধার অভিযান এবং ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ অব্যাহত রেখেছে।

মতামত...