,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে জিয়া শিশু পার্কের জায়গায় স্মৃতিসৌধ গড়ার পরিকল্পনা মেয়রের

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::  চট্টগ্রামে নগরীর কাজীর দেউড়িস্থ সার্কিট হাউজ সংলগ্ন ‘জিয়া শিশু পার্ক’র জায়গায় স্মৃতি সৌধ নির্মাণের পরিকল্পনা নিচ্ছেন মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন।
১৯৯২ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর চসিক শিশু পার্ক স্থাপনের জন্য ‘ভায়া মিডিয়া বিজনেস সার্ভিসেস’ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে ২৫ বছরের জন্য সার্কিট হাউস সংলগ্ন ৩ একর জায়গা ইজারা দেয়। আগামী বছর এর ২৫ বছর পূর্ণ হচ্ছে। মেয়াদ শেষ হলে নতুন করে আর নবায়ন না করেই সেখানে ‘স্মৃতি সৌধ’ নির্মাণের ঘোষণা দেন মেয়র। এদিকে শিশু পার্কটি যে ভূমিতে গড়ে তোলা হয়েছে তার মূল মালিক প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। ২০০৮ সালের ২৮ জানুয়ারি চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্টের এক্সিকিউটিভ অফিসার মোহাম্মদ নুরুল আবছার স্বাক্ষরিত এক পত্রের মাধ্যমে নিজেদের জমি ফেরত চায় সংশ্লিষ্ট দপ্তর।
সূত্রে জানা গেছে, বুধবার জাকির হোসেন রোডস্থ পাহাড়তলী বধ্যভূমি শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মেয়র নগরীতে স্মৃতি সৌধ নির্মাণের ঘোষণা দেন।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অনেকেরই পরামর্শ হচ্ছে, ‘বর্তমানে যেখানে শিশুপার্ক আছে সেখানেই স্মৃতি সৌধটি করি’।
‘কিন্তু শিশুপার্কটি যেখানে আছে সেই জায়গার মূল মালিক তো প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়? অতীতে শিশুপার্কটি উচ্ছেদেরও উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। তাহলে এখানে স্মৃতি সৌধ নির্মাণের সম্ভাবনা কতটুকু? এমন প্রশ্নে মেয়র বলেন, ২৫ বছরের জন্য আমরা শিশুপার্কটি ইজারা দিয়েছি। আগামী বছর মেয়াদ শেষ হচ্ছে। এখানে একটি নান্দনিক স্মৃতি সৌধ গড়ার পরিকল্পনা নিয়েছি। চট্টগ্রামের মত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় স্মৃতিসৌধ নেই এটা কেমন জানি। স্মৃতি সৌধ খুব প্রয়োজন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে জড়িত নান্দনিক স্মৃতি সৌধ গড়া হবে। সেক্ষেত্রে তো আপত্তি থাকার কথা না। জীবিত মুক্তিযোদ্ধাদের অনেকেই স্মৃতি সৌধ গড়ার দাবি করেছেন।
চট্টগ্রাম মহানগরের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফ্‌ফর আহমদ বলেন, মেয়র স্মৃতি সৌধ নির্মাণের যে ঘোষণা দিয়েছেন সেটা প্রশংসনীয়। মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল চট্টগ্রাম থেকে। অথচ চট্টগ্রামে কোন স্মৃতি সৌধ নেই। এটা ভাবাই যায় না। আমরা মন্ত্রীকে এ বিষয়ে অনুরোধ করেছিলাম। এখন সরকার যদি মনে করে শিশুপার্কের জায়গা স্মৃতি সৌধ গড়ার তাহলে নিশ্চয়ই ভাল হবে। মুক্তিযোদ্ধারা চট্টগ্রামে একটি স্মৃতি সৌধ নির্মাণের দাবি করে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে।
উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সভায় ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ জেলা প্রশাসককে পার্কটি বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

মতামত...