,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে টানেল করছেন শেখ হাসিনা,এরশাদ খালেদা পারেনি: মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান,২১ ডিসেম্বর,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: দক্ষিণ রাউজান মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা মঞ্চে স্মৃতিচারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন এমপি বলেছেন এরশাদ খালেদা কেউ পারেনি কর্ণফুলী তলদেশে টানেল নির্মাণ কাজে প্রক্রিয়া শুরু করতে। পেরেছেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা আন্দোলনের ডাক দিয়ে বাঙালী জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। ৭০ এর নির্বাচনের বঙ্গবন্ধুর পক্ষে গণরায় প্রতিফলন ঘটলেও পাকিস্তানীরা বেঈমানী করে বাঙালী জাতিকে ন্যার্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছিল। এই ক্ষেভে জেগে উঠা জাতি বঙ্গবন্ধুর প্রতিক্রিয়া অপেক্ষায় ছিলেন। ৭ মার্চ তাঁর ঐতিহাসিক ভাষনে দিক নিদ্দেশনা পেয়ে জাতী স্বাধীনতা যুদ্ধে উদ্বুদ্ধ হয়। মেজর জিয়ার সেনা প্রধান হওয়া খায়েশ নিয়ে সস্ত্রীক আমার কাছে এসেছিলেন। চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধুর কাছে আমাকে নিয়ে তদবির করাতে। চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলতে পারি জিয়া স্বাধীনতার ঘোষনা দেননি। সংসদে আমি চ্যালেঞ্জ করে বলেছিলাম জিয়া স্বাধীনতা ঘোষনা দিয়েছেন এমন প্রমান দেখাতে পারলে আমি সংসদ থেকে পদত্যাগ করবো।এই চ্যলেঞ্জ শুনেও সেদিন তারা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেনি।
মঙ্গলবার নোয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিজয় মঞ্চের স্মৃতিচারণ মঞ্চে সভাপতিত্ব করেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন রাউজানকে এখন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও তার কন্যা প্রধান মন্ত্রীর শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নের রঙে রাঙানো হয়েছে। রাউজানের মানুষের সব মৌলিক সমস্যা ইতিমধ্যে সমাধানে কাজ করা হয়েছে। হালদা নদীর উপর মোহরা –কচুখাইন সংযোগ সেতু, চুয়েট পর্যন্ত রেল লাইন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। দক্ষিণ রাউজানে প্রতিষ্ঠা করা হবে একটি ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়। অওয়ামীলীগ নেতা মঞ্জুর হোসেন ও বাবুল মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব নুরুল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন এম.এ ওহাব, যুগ্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জসিম উদ্দিন, মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী দিলোয়ারা ইউছুপ, সহকারী পুলিশ সুপার মসিহউদৌল¬াহ-,রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম হোসেন, কামাল উদ্দিন আহমেদ, ওসি কেপায়েত উল¬াহ, মুক্তিযোদ্ধা এম.আব্বাস উদ্দিন। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা চিত্ত রঞ্জন বিশ্বাস,সুনিল চক্রবর্তী, প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, কাউন্সিলর জমির উদ্দিন পারভেজ, নজরুল ইসলাম চৌধুরী,সামিমুল ইসলাম সামু, চেয়ারম্যান ভুপেশ বড়–য়া, লায়ন সাহাবুদ্দিন আরিফ, রোকন উদ্দিন, জসিম উদ্দিন হিরু, সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল, সুকুমার বড়–য়া, তসলিম উদ্দিন চৌধুরী,যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ সেলিম, মনিরুল ইসলাম, কমাণ্ডার আবু জাফর চৌধুরী, শেখ সিরাজুল ইসলাম, জাফর আহমদ,,সৈয়দ মোজাফ্ফর হোসেন, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা, ছাত্রলীগ নেতা আবু তৈয়ব, দুলাল বড়–য়া, নুরুল আবসার মিয়া,নাইম উদ্দিন চৌধুরী, আরিফুল ইসলাম, আজম খান, নুরুন নবী,দোস্ত মোহাম্মদ খান. এস.এম জাহাঙ্গীর আলম সুমন, শওকত হোসেন, ইমতিয়াজ হোসেন, মফজ্জল হোসেন, ম্যালকম চক্রবর্তী, মহিউদ্দিন ইমন, জাহাঙ্গীর আলম,দিদারুল আলম,প্রকৌশলী আনোয়ারুল আজিম, সৈয়দ মেজবাউদ্দিন,এস এম মুজিব, মোহাম্মদ সেলিম, সালাউদ্দিন, আমীর হামজা, নুরুল ইসলাম, কাউছার উদ্দিন লিটন, মোহাম্মদ সেকান্দর প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে নোয়াপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের জন্য কনফিডেন্স সিমেন্ট এর দেয়া একটি পিক আপ ভ্যান পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেন প্রধান অতিথি।

মতামত...