,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে বেপরোয়া বাসের চাপায় ২কলেজ ছাত্র নিহত

বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের কুয়াইশ কলেজের সামনে বেপরোয়া বাসের চাপায় ঘটনাস্থলে দুই কলেজছাত্র নিহত এবং আরো একজন আহত হয়েছেন। আহত এবং নিহত শিক্ষার্থীরা কুয়াইশ বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ সিটি করপোরেশন কলেজের এবারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন। নির্বাচনী (টেস্ট) পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার জন্য অপেক্ষমাণ এসব শিক্ষার্থীর জীবনপ্রদীপ নিভিয়ে দেয় বেপরোয়া বাসচালক। জনতার সহায়তায় ঘাতক বাসের চালক শ্যামল মহাজনকে আটক এবং ঘাতক বাসটি জব্দ করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত এবং নিহতদের দ্রুত উদ্ধার করে এলাকাবাসী চমেক হাসপাতালে নিয়ে যায়। নিহত পরীক্ষার্থীরা হলেন আরেফা আবেদিন খান (১৮) ও নিলাই সরকার (১৮)। আহত হয়েছেন মো. হোসাইন। এর মধ্যে নিলাই ও হোসাইনের গ্রামের বাড়ি রাউজানে। নিহত ছাত্রী আরেফা আবেদিন খান (১৮) এর বাসা নগরীর চান্দগাঁও থানার বাহির সিগন্যাল এলাকায়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বেলা ২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত কুয়াইশ বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী (টেস্ট) পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষাশেষে বাড়ি যাওয়ার জন্য তারা চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের পশ্চিম পাশ থেকে মূল সড়কে উঠার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন। এসময় একটি প্রাইভেট কার সড়কের পশ্চিম পার্শ্বস্থ কলেজ সড়ক হয়ে গন্তব্যে যাওয়ার উদ্দেশ্যে আড়াআড়িভাবে কাপ্তাই সড়কে উঠে আসে। একই সময়ে কাপ্তাই থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখী একটি দ্রুতগামী বাস (চট্টগ্রাম জ-১৫২৯) সড়কে উঠে আসা ওই প্রাইভেট কারকে সাইড দিতে গিয়ে রং সাইডে এসে রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বে দাঁড়িয়ে থাকা কলেজ শিক্ষার্থীদের চাপা দেয়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে মদুনাঘাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ ও এলাকাবাসী গুরুতর আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে সন্ধ্যা ৭টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক আরেফা আবেদিন খান দিপা ও নিলাই সরকারকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ ঘাতক বাসের চালক শ্যামল মহাজনকে আটক এবং ঘাতক বাসটি জব্দ করে ।

দুর্ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে মদুনাঘাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ আরিফুর রহমান বলেন, পরীক্ষা শেষে গাড়িতে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছিল শিক্ষার্থীরা। এসময় কাপ্তাই থেকে চট্টগ্রামগামী একটি বেপরোয়া বাস দ্রতগতিতে এসে তাদের চাপা দেয়। এতে এক ছাত্র ও এক ছাত্রী মারা যায়, আহত হয় একজন। পুলিশ জনতার সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক বাস চালককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। ঘাতক বাসটিও আটক করা হয়েছে বলে তিনি জানান। পুলিশের তৎপরতায় দুর্ঘটনার পর এলাকায় কোনো বিশৃঙ্খলা হয়নি উল্লেখ করে পুলিশ পরিদর্শক আরিফ বলেন- বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

হাটহাজারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে ।

মতামত...