,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে ভুয়া এসপি গ্রেপ্তার

cনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ এর পুলিশ সুপার (এসপি)পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করার সময় এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে হালিশহর থানা পুলিশ।গ্রেপ্তারকৃত ব্যাক্তির নাম গাজীরুল হক(৪৮)।
বৃহস্পতিবার( ৬ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
গাজীরুল হক কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী পানটি গ্রামের মৃত মনোয়ার হোসেন বিশ্বাসের ছেলে। সে বর্তমানে বন্দর থানার পোর্ট কলোনীতে ভাড়া বাসায় থাকে।
হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) প্রণব চৌধুরী জানান,গাজীরুল হক এক সময় মুদি মালামালের ষ্টক ব্যবসা করতো।ব্যবসা চলাকালীন সময় সমাজের উচ্চ শ্রেণীর লোকজনসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে এক সময় তার পরিচয় ছিল। ফলে তাদের চলাচল কথাবার্তা সম্পর্কে তার ভাল ধারনা ছিল। হঠাৎ ব্যবসায় ধস নামে গাজীরুলের ।অভাবের সংসারে তার স্ত্রী এনজিওতে চাকরী করতেন।এক সময় নিরুপায় বুদ্ধি খাটালেন নিজেকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্তকর্তা পরিচয় দিয়ে কিছু করা যায় কিনা।
ওসি বলেন,কিছুদিন আগে হালিশহর থানার মইন্যাপাড়া জানে আলমের বাড়ীর আসাদকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।এই সংবাদটি তার কাছে যায়। নিজে নিজে একটি গল্প তৈরী করে মইন্যপাড়ায় যায় সে।পরিবারে সদস্যদের নিজেকে ঢাকা স্পেশাল ব্রাঞ্চের পুলিশ সুপার বলে পরিচয় দেন গাজীরুল হক।
নিখুত অভিনয় করে নিখোঁজ ব্যক্তি আসাদকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ধরে নিয়ে গেছে।তাকে ছেড়ে আনতে তার জন্য কোন ব্যাপার না তার মোবাইল নম্বর দিয়ে যায় প্রথম দিন।
নিখোঁজ ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা তার সাথে ভাল বিশ্বাস জমায়। ফলে দ্বিতীয় দিন তার সাথে কথা বলে। সে আবার বাড়িতে আসে। বিভিন্ন কুট কৌশলের মাধ্যমে মুখরোচক গল্প করে বসে। ৫০ লাখ টাকা দিলে সে এসপি হিসেবে ছাড়িয়ে আনবে বলে পরিবারের সদস্যদের কাছে জানায়।
পরিবারের সদস্যরা দর কষাকষি করতে থাকলে খবরটি স্থানীয় নেতা জহিরের কানে পৌছলে সে জিজ্ঞেস করে। তার কথা বার্তায় সন্দেহ হলে থানায় খবর দেন জহির।
পুলিশ গিয়ে প্রতারককে জিজ্ঞসাবাদ করে জানতে পারে সে প্রতারক।প্রতারণা করে এসপি পরিচয় দিয়ে আসছে বলে স্বীকার করেন বলে জানান ওসি প্রণব চৌধুরী।

মতামত...