,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে ‘ভুয়া ডিবি’ ছিনতাইকারী চক্র গ্রেপ্তার ১১

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::সেলিম মাহমুদ (৪৪) রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর। রেজাউল করিম একজন ব্যবসায়ী। কায়সার হামিদ রাজু (৩১) নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজার তিন পোলের মাথায় গাড়ির ব্রোকার। এসব তাদের অতীত সামাজিক পরিচয়। তবে ১১ সদস্যের ওই দলটি পরিচয় দেয় চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) বিভিন্ন পদের কর্মকর্তা হিসেবে। তারা বাস ও সিএনজি অটোরিক্শা থেকে যাত্রীদের পিস্তল ঠেকিয়ে আটক করে হ্যান্ডকাপ পরায়। তারপর নির্জন এলাকায় নিয়ে নগদ টাকা ও অন্যান্য জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) মঙ্গলবার ও গতকাল বুধবার নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করেছে। তাদের কাছে একটি খেলনা পিস্তল, হ্যান্ডকাপ, একটি নষ্ট হয়ে যাওয়া ওয়াকিটকি পাওয়া যায়।

ভুয়া ডিবি পুলিশের অপর সদস্যদের নাম : হারাধন দাশ (৩৭), মো. মামুন উদ্দিন (৩৫), জাহেদুল আজম (৩৫), শাহেদ রানা (৩৭), শওকত আলী মানিক (৩২), মো. রুবেল (৩০), জামশেদুল করিম (৩৫) ও মো. মাসুদ (২৮)। এদের মধ্যে হারাধন দাশ হলো ডিবির ভুয়া ওসি। মামুন উদ্দিনের বিরুদ্ধে ফটিকছড়ি থানায় দুইটি হত্যা মামলা রয়েছে। চারবছর জেল খেটে চারমাস আগে বের হয়। জেল থেকে বের হওয়ার পরদিনই ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পলোগ্রাউন্ড এলাকায় অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার হয়। কিন্তু দুইমাস যেতে না যেতে পুনরায় জামিনে বের হয়। জাহেদুল আজমের কাজ হচ্ছে ব্যাংক থেকে টাকা তোলা ব্যক্তিকে অনুসরণ করে পুরো দলকে তা অবহিত করা। শওকত আলী মানিক মোটরসাইকেল চালক। সে ভুয়া ডিবির মূল দলের পেছনে মোটরসাইকেল নিয়ে থাকে। ডিবি পুলিশ এই দলের কাছ থেকে একটি সিএনজি অটোরিক্শা, দুইটি মোটরসাইকেল, দুইটি ডিবি পুলিশ লেখা পোশাক, একজোড়া হ্যান্ডকাপ, একটি খেলনা পিস্তল ও একটি ওয়্যারলেস সেট উদ্ধার করেছে। এ ছাড়া তাদের কাছ থেকে ছিনতাই করা নগদ ৩২ হাজার ৫০০ টাকা ও দুইটি মোবাইল সেটও উদ্ধার করা হয়। এ দলটি গত পাঁচবছর ধরে নগরীতে ছিনতাই কাজে সক্রিয় বলে পুলিশকে জানিয়েছে।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ সদর দপ্তরের সামনে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ ব্যাপারে বিস্তারিত বর্ণনা দেন মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিবি) হাসান মো. শওকত আলী। তিনি বলেন, গত ২৮ ডিসেম্বর বিকেলে নগরীর লাভ লেন কাদিয়ানি মসজিদের সামনে ৩ নম্বর রুটে চলাচলকারী একটি শহর এলাকার বাস থামায় একদল লোক। তারা চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজের ছাত্র ইমতিয়াজ উদ্দিন ইমনকে (২২) ডিবি পুলিশ পরিচয়ে গাড়ি থেকে জোরপূর্বক নামিয়ে একটি সিএনজি অটোরিক্শায় তুলে নেয়। তার কাছে দুবাইপ্রবাসী মামার পাঠানো একলাখ ৬৭ হাজার টাকা, কলেজের বইপত্র এবং মানিব্যাগে ১৩শ টাকা ছিল। সঙ্গে ছিল দুইটি মোবাইল সেট। ভুয়া ডিবির সদস্যরা তাকে প্রথমে সিএনজি ট্যাক্সিতে করে সিআরবি পলোগ্রাউন্ড রাস্তায় নিয়ে ব্যাগভর্তি টাকা ছিনিয়ে নেয়। অপর দুইজন তাকে সিএনজি’তে তুলে কদমতলী ফ্লাইওভারের মাঝামাঝি নির্জন রাস্তায় মারধর করে ফেলে যায়। ইমতিয়াজ সিএনজি ট্যাক্সির নম্বরটি দেখে নেন। পরে স্বজনদের নিয়ে গত মঙ্গলবার মহানগর ডিবি অফিসে এসে তা মৌখিকভাবে অবহিত করেন। এরপর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল ভুয়া গোয়েন্দা পুলিশ দলকে ধরার অভিযান শুরু করে। নেতৃত্ব দেন মহানগর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ইলিয়াস খান। গতকাল সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ভুয়া ১১ ডিবি পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে ডিবির উপ-কমিশনার (উত্তর) হাসান মো. শওকত আলী জানান, কলেজ ছাত্র ইমতিয়াজ বিষয়টি অবহিত করার আগে এই দলটি নগরীতে আরও অন্তত ১২টি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে। এর আগে তারা আর গ্রেপ্তার হয়নি। তারা সাধারণত সপ্তাহের রবিবারকেই ছিনতাইয়ের জন্য বেশি গুরুত্ব দেয়। এর কারণ হিসেবে তারা জানায়, রবিবার ব্যাংক খোলার পর অনেকেরই টাকার প্রয়োজন হয়। ভুয়া ডিবি সদস্য জাহেদুল আজম জুবিলি রোডের কোনও একটি ব্যাংকে গিয়ে চুপচাপ বসে থাকে। গ্রাহক টাকা নিয়ে বের হলে সে উক্ত গ্রাহকের পিছু নেয়। এরপর গ্রাহক বাসে ওঠলে সেও সেই বাসে ওঠে এক জায়গায় বসে। বাসটি ছাড়ার পর তাদের অন্য সদস্যরা এসে ব্যাংক থেকে টাকা তোলা লোকটির হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে নিজেদের ডিবি পুলিশ বলে দাবি করে। তখন লোকটি যেতে না চাইলে ওই বাসে যাত্রীবেশে থাকা জাহেদ বলে, যেহেতু ডিবি পুলিশ ধরেছে, তাই যেতেই হবে। তারা ওই যাত্রীকে নিয়ে নেমে গেলে জাহেদও কিছুদূর গিয়ে নেমে যায়।

ডিবি পুলিশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নগরীর লাভলেন থেকে ওয়াসা, লালখান বাজার, সিআরবি ও পলোগ্রাউন্ড সড়কের নির্জন এলাকা এই দলটির কাছে ছিনতাইয়ের জন্য বেশি পছন্দের জায়গা।

রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র প্যানেলের সদস্য ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম বলেন, সেলিম মাহমুদ ২০০১ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার বিএনপি দলীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছিল। ২০০৯ সালের পর তিনি রাঙ্গুনিয়া যায়নি। জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার ১১ জন পুলিশকে জানায়, নগরীতে এ ধরণের আরও দুইটি দল ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ছিনতাই কাজে জড়িত।

মতামত...