,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রামে সড়ক অবরোধ ২০ গার্মেন্টমস শ্রমিক আহত

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম মহানগরীর পাহাড়তলী এলাকায় পোষাক কারখানার শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও করলে পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ এবং ফাঁকা গুলি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সিএমপির পাহাড়তলী থানার সামনে এ ঘটনা ঘটেছে। এসময় পুলিশের লাঠিপেটায় অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়েছে।
আহতদের কয়েকজন হলো- নার্গিস (২০), হাছিনা (২২), জাহাঙ্গীর (২৭),শামীম (৩০), মুক্তার (৩০), রুমা (২২), কবির (২৬), আকলিমা (২৮), ছালমা (৩৪), রহিম (৩০)। তাদের কয়েকজনকে একে খাঁন আল আমিন হাসপাতাল এবং দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের কারখানা থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা সবাই সাগরিকা রোডস্থ গাউছিয়া ফ্যাশন নামে একটি পোষাক কারখানার শ্রমিক। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সকাল পোষাক কারখানটিতে উৎপাদন বন্ধ রয়েছে।

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত কুমার বড়ুয়া জানান, শ্রমিক বিক্ষোভের বিষয়টি স্বীকার করলেও লাঠিপেটা এবং গুলি চালানোর বিষয়টি অস্বিকার করেন। তিনি বলেন, তাদের দেনা পাওনা নিয়ে মালিক পক্ষের সাথে ঝামেলা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজন শ্রমিককে থানায় নিয়ে আসা হয়েছিল তাকে ছেড়েও দেয়া হয়েছে।
এ বিষয় নিয়ে গার্মেন্টস মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ পুলিশ মালিকপক্ষ এবং শ্রমিক প্রতিনিধিদের মধ্যে বৈঠক চলছে বলে জানাগেছে।

আহত শ্রমিক মিজান, ফাহিমা ও মুক্তা জানান, সাগরিকা রোডে অবস্থিত গাউছিয়া ফ্যাশনে চাকুরী করেন তারা। বেতন-ভাতা বৃদ্ধির আন্দোলনকে কেন্দ্র করে বুধবার রাদে পুলিশ সজিব নামে এক শ্রমিককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। আজ বৃহস্পতিবার শ্রমিকরা আটকের ঘটনার জের ধরে সকালে সড়ক অবরোধ এবং পাহাড়তলী থানা ঘেরাও করা হয়। এসময় পুলিশ লাঠিপেটা করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে গেলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা পাল্টা ইটপাটকেল মারে। এতে পুলিশ শর্টগানে গুলি চালায়। এসময় প্রায় অর্ধশত পোষাক শ্রমিক আহত হয় বলে দাবী করেন শ্রমিক নেত্রী নাজমা বেগম।

প্রতক্ষদর্শীরা জানান, পুলিশের বেপরোয়া গুলি ও লাঠি চার্জে বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে থানার সামনে থেকে পালিয়ে গেলেও পরে সিডিএ মার্কেটের সমানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে সড়কে প্রায় ২৫ মিনিট যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে পুলিশ আটক শ্রমিক সজিবকে ছেড়ে দিলেও আসিফ নামের এক শ্রমিক নেতাকে আটক করে। তবে বেলা ২টার দিকে পুলিশ আটক শ্রমিক নেতা আসিফকে বৈঠকে হাজির করেছে বলে শ্রমিকরা জানায়।

এ ঘটনার পর সাগরিকার উক্ত পোষাক কারখানায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বেলা ২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মালিক শ্রমিক ও পুলিশ ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা বৈঠক চলছিল বলে পোষাক শ্রমিক মিজান জানান।
এদিকে এ ঘটনার পর সরেজমিন উক্ত পোষাক কারখানায় গিয়ে দেখা যায় বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকদের কেউ রাস্তায় কেউ কারখানার ভিতরে অবস্থান নিয়েছে। বাইরে এবং কারখানা ভিতরে পাহাড়তলী থানা এবং শিল্প পুলিশ অবস্থানে করছে।

বি এন আর/০০১৬/০০৪/০০৭/০০০৪৮৬৫/এস

মতামত...