,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিতরাই বিজয়ী

ainjibi p-gমীর মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন সিকদারঃ  চট্টগ্রাম ,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম::  চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন আজ শান্তি পূর্ণ ভাবেই সম্পন্ন হয়েছে।  এ নির্বাচন  কে ঘিরে আদালত পাড়াসরগরম  সারা  দিন। । জাতীয় নির্বাচনের আদলে আওয়ামী লীগ ও  বিএনপি সমর্থিত ও   সমমনা আইনজীবী সংসদ প্যানেলেসহ সকল প্যানেলের সমন্বয়  করে  ভোটাররা ভোট প্রদান করেছেন । ফলে একক ভাবে কোন প্যানেল বিজয় অর্জন করতে পারেনি।  নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত ঐক্য পরিষদ থেকে সভাপতি পদে ১ হাজার ২৭৮ ভোট পেয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন এডভোকেট মোহাম্মদ কফিল উদ্দিন চৌধুরী । তবে, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বড় ধরনের হোঁচট খেল আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেল। বিএনপি সমর্থিত প্যানেল আইনজীবী সমিতির গুরুত্বপূর্ণ অধিকাংশ পদে জয়লাভ করেছে। অপরদিকে সমমনা আইনজীবী সংসদ গুরুত্বপূর্ণ দুইটি পদ দখলে নিয়ে এবার চমক দিয়েছে। বুধবার সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে মোট ৯টি সম্পাদকীয় পদের মধ্যে সভাপতিসহ গুরুত্বপূর্ণ ৫টি পদই দখল করেছে ঐক্য পরিষদ। সিনিয়র সহ-সভাপতিসহ ২টি সম্পাদকীয় পদে সাফল্য সমন্বয় পরিষদের। আর দলনিরপক্ষে সমমনা সংসদ সাধারণ সম্পাদকসহ ২টি সম্পাদকীয় পদে জয়লাভ করে চমক দেখিয়েছে। এদিকে নির্বাহী সদস্য পদের ১০টির মধ্যে ৫টিতে ঐক্য পরিষদ ও ৫টিতে সমন্বয় পরিষদের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন।

বিকেল ৫টায় শুরু হওয়া ভোট গণনা শেষে রাত সাড়ে ১২টায় ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট আ ক ম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। এবার ভোটার ছিল ৩ হাজার ৪০৬ জন। সমিতির ১৯টি পদের বিপরীতে ৩টি প্যানেলের মোট ৪৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। এবার ভোট প্রদান করেছেন  মোট ২ হাজার ৮২৮ জন ভোটার ।

সভাপতি পদে বিএনপি সমর্থিত ঐক্য পরিষদের প্রার্থী মোহাম্মদ কফিল উদ্দিন চৌধুরী ১ হাজার ২৭৮ ভোট নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি ছিলেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদের প্রার্থী রতন কুমার রায়, তিনি পেয়েছেন ৯০৭ ভোট। এ পদে সমমনার প্রার্থী হিসেবে হুমায়ন কবির ভোট পেয়েছেন ৬২০টি।

সাধারণ সম্পাদক পদে সমমনার এস এম জাহেদ বীরু ১ হাজার ২০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ আবু হানিফ পেয়েছেন ৮১৬ ভোট। ঐক্য পরিষদের এস ইউ নূরুল ইসলামের ভোট ৭৭৫।

জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন সমন্বয় পরিষদের মুজিবুর রহমান চৌধুরী (৯৯৯)। ঐক্য পরিষদের শেখ মোহাম্মদ ছাবেদুর রহমান (৮৬৪) ও সমমনার মোহাম্মদ আলী (৯০৫)। সহ-সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন ঐক্য পরিষদের এইচ এস আবুল হাসান, তিনি পেয়েছেন ১ হাজার ৪৯২ ভোট। সমন্বয় পরিষদের আলী আশরাফ চৌধুরী পেয়েছেন ৯৮৪ ভোট ও সমমনার একেএম রুহুল আমিনের ভোট ২৭৫।

সহ সাধারণ সম্পাদক পদে সমমনার মোহাম্মদ রাসেল বিজয়ী হয়েছেন ৯৬০ ভোট নিয়ে, সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ইয়াছিন খোকন পেয়েছেন ৯১৩ ভোট। ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ হাসান আলী চৌধুরীর ভোট ৯১৭।

অর্থ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন, ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, তিনি পেয়েছেন ১ হাজার ৬৪৮ ভোট। নিকটতম প্রার্থী সমন্বয় পরিষদের শাহেদুল আজম শাকিলের ভোট ১ হাজার ৭৪। পাঠাগার সম্পাদক পদে বিজয়ী ঐক্য পরিষদের ফজলুল বারীর ভোট ১ হাজার ২২৪। সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন পেয়েছেন ৯১৬ ভোট। সমমনার হামিদ আল চৌধুরী পেয়েছেন ৬০২ ভোট।

সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে বিজয়ী সমন্বয়ের দুলাল চন্দ্র দেবনাথ পেয়েছেন ১ হাজার ৩৫ ভোট। ঐক্য পরিষদের হাসনা হেনার ৯৬২ ভোট ও সমমনার মোহাম্মদ তাজউদ্দিন পেয়েছেন ৭৫৩ ভোট।

তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ রায়হান সালেহীন, তার ভোট ১ হাজার ২৭০, সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ২৪৫ ভোট ও সমমনার ফোরকান চৌধুরী পেয়েছেন ২২৩ ভোট।

নির্বাহী সদস্য পদে বিজয়ী হয়েছেন সমন্বয় পরিষদের আজহারুল হক, মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, রুবেল কুমার দেব অপু ও শুভাশীষ শর্মা। ঐক্য পরিষদ থেকে নির্বাহী সদস্য পদে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন মিনহাজ উদ্দিন, মো. মোস্তাফিজুর রহমান, মো. নাসির উদ্দিন আহম্মদ খান, রাশেদুল ইসলাম চৌধুরী ও শফিকুল আলম লিটন।

বিএনআর/১৬২১১/০০১৬ /এন

মতামত...