,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগে কাউন্সিলররা কার্ড না পাওয়ায় তৃণমূলে ক্ষোভ

দক্ষিণ চট্টগ্রাম সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সাবেক সাংসদ হাসিনা মান্নানসহ একাধিক নেতা কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কাউন্সিল অধিবেশনের কাউন্সিলর কার্ড না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন একাংশের নেতাকর্মীরা। যারা কাউন্সিলর কার্ড পাননি তারা মূলত কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের অনুসারী বলে জানা গেছে।

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন সিনিয়র নেতা ঢাকা থেকে বিডিনিউজ রিভিউজ কে জানান, দলের সহ সভাপতি হাসিনা মান্নান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাশেদ মনোয়ার, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক, পটিয়া উপজেলার সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন,এড.আবদুর রশিদ সহ দক্ষিণ জেলার অনেকেই কার্ড পাননি।

এব্যাপারে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, হাসিনা মান্নানসহ যাদের কথা বলা হচ্ছে তারা তো কেউ আমার কাছে কার্ডের জন্য আসেনি। কাউন্সিলর কার্ড তো একজনেরটা অন্যজনকে দেয়া যায় না। আর আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান তো কাউন্সিলর হননি। আগে কাউন্সিলর হতে হবে-তবেই তো কার্ড পাবেন। আবুল কালাম চৌধুরী এসে আমার কাছ থেকে ১০টি কার্ড নিয়ে গেছেন।
তবে কাউন্সিলর কার্ডসহ দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সম্পর্কে বিভিন্ন সময়ে পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও কর্ণফুলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমদ সোমবার ঢাকা থেকে বিডিনিউজ রিভিউজ কে জানান, আমাদের কাউন্সিলর কার্ডের জন্য মোছলেম উদ্দিন সাহেব আমাকে এবং আবুল কালাম চৌধুরীকে যেতে বলেছেন। আমরা গেলাম-উনি দেখা করলেন না। আমরা জেলা কমিটির মূলপদধারীসহ ২০ জন এখন এক জায়গায় আছি। এখানে দক্ষিণ জেলার সহ সভাপতি হাসিনা মান্নানসহ অনেকেই কাউন্সিলর কার্ড পাননি। এটা নিয়ে দক্ষিণ জেলার নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। পটিয়া উপজেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে কার্ড দেয়া হয়নি। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন চৌধুরী কাউন্সিলর কার্ড পাননি আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান কার্ড পাননি বলে তিনি অভিযোগ করেন।

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক ঢাকা থেকে বিডিনিউজ রিভিউজকে জানান, দক্ষিণ জেলার অনেক সিনিয়র নেতা কাউন্সিলর কার্ড পাননি। এটা নিয়ে সিনিয়র নেতাদের ও কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কার্ডগুলো সিনিয়র নেতাদেরকে না দিয়ে নিজেদের পছন্দমত লোকদেরকে দেয়া হয়েছে, অনেক নন-কাউন্সিলরকেই কাউন্সিলর কার্ড পরে সম্মেলনে প্রবেশ করতে দেখা গেছে। এটা সুষ্ঠু দলীয় কর্মকাণ্ড নয়,আমরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। দলীয় হাইকমাণ্ড কে বিস্তারিত জানানো হয়েছে।

মতামত...