,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম বন্দরের নতুন চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল দায়িত্ব গ্রহণ

bandr  adm. kaledনিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম বন্দরের নতুন চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জুলফিকার আজিজের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেন।

 

দায়িত্ব গ্রহণের পর বন্দরের বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেছেনএবং বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নতুন চেয়ারম্যানকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবালকে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় সরকার। প্রেষণে বন্দরের চেয়ারম্যান নিয়োগ দিতে তার চাকরি নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করে ওইদিন আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল ১৯৮১ সালের জানুয়ারি মাসে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে যোগ দিয়ে ১৯৮৩ সালের ১ জুন এক্সিকিউটিভ শাখায় কমিশন লাভ করেন।চট্টগ্রাম বন্দরে যোগদানের আগে তিনি চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর কমান্ডার বিএন ফ্লিট হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

রিয়ার এডমিরাল খালেদ ১৯৮১ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত ইতালিয়ান নেভাল একাডেমি থেকে ৪ বছর মেয়াদী ক্যাডেট, মিডশীপম্যান ও সাব লেফটেন্যান্ট কোর্স সম্পন্ন করেন। ১৯৯৬ সালে ঢাকা ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এন্ড স্টাফ কলেজ এবং ১৯৯৭ সালে ভারতের স্টাফ কলেজ থেকে ডিফেন্স সার্ভিসেস  কৃতিত্বের সাথে সম্পন্ন করেন। এছাড়া ১৯৯৯ সালে অষ্ট্রেলিয়ার একটি বিশ্ববিদালয় থেকে মেরিটাইম ল এনফোর্সমেন্ট কোর্স সম্পন্ন করেন।

২০১৩ সালে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে ভারত থেকে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ কোর্স (এনডিসি) সম্পন্ন করেছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ইন ডিফেন্স স্টাডিস এবং ভারতের মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার ইন ডিফেন্স এন্ড স্ট্রাটেজিক স্টাডিজ সম্পন্ন করেন। সম্প্রতি মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিফেন্স এন্ড ষ্ট্র্যাটিজিক ষ্টাডিজ বিষয়ে এমফিল ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

রিয়ার এডমিরাল খালেদ ইকবাল দীর্ঘ চাকরি জীবনে গুরুত্বপূর্ণ কমান্ড, স্টাফ ও প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এন্ড স্টাফ কলেজ, ঢাকায় প্রায় ৩ বৎসর প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। পরে ২০০৭ সালে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির  কমান্ড্যান্ট পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

তিনি বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর প্রায় সব ধরনের যুদ্ধ জাহাজ অত্যন্ত দক্ষতার সাথে কমান্ড করেছেন। নৌ-পারদর্শিতা, সাহসিকতা ও পেশাগত দক্ষতার জন্য তিনি সরকারের ‘বিশিষ্ট সেবা পদক (বিএসপি)’ লাভ করেছেন।

নৌ সদরে বিভিন্ন সময়ে ডাইরেক্টর নেভাল ট্রেনিং এবং ডাইরেক্টর পার্সোনেল সার্ভিসেস এর মত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করা রিয়ার এডমিরাল খালেদ ইকবাল ২০০৬ সালে আইভরি কোস্টে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ গ্রহণ করেন। আবিদজানে মিলিটারি অবজারভার দলের প্রধান হিসাবে নিয়োজিত ছিলেন। ২০১১ থেকে ২০১২ পর্যন্ত সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে মহাপরিচালক সিভিল মিলিটারি রিলেশন্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মতামত...