,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ

a

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা সাবেক মেয়র মহি উদ্দীনের সাথে সাক্ষাৎ করেন

নাছির মীর :: বিডিনিউজ রিভিউজঃ যদি জানতে চান! চবি ছাত্রলীগের গ্রুপ কয়টি? তাহলে আপনাকে জানতে হবে, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চলাচলকারী ট্রেনের বগি কয়টি? হ্যা! তাই। চবির শাটল ট্রেনের যতটা বগি, ছাত্রলীগের ততটা গ্রুপ!

দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতি চলছে এই বগিভিত্তিক ধারায় । এই এক একটা বগি এক একটি পক্ষের ধারা নিয়ন্ত্রন করে থাকে।

ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের রাজনীতি মূলত নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরী ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী-এই দুই ধারায় বিভক্ত।

কিন্তু এই দুই ধারা শাটল ট্রেনে এসেছে হয়ে গেছে অন্তত ১০ এর ‍উপর শাখা গ্রুপ। আর এই বগির নিয়ন্ত্রণে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে সংগঠনগুলোর মধ্যে প্রায়ই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এর জের ধরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত হয়েছে বারবার।

তাই অন্তত তিনবার ঘোষণা দিয়ে শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কোনোবারেই তা বাস্তবায়ন হয়নি।

এবার ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে নাম আসা না আসা নিয়ে বগিভিত্তিক গ্রুপগুলোর মধ্যে আবারও ঝামেলা হওয়ায় বগিভিত্তিক রাজনীতির উপর হস্তক্ষেপ করল ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদ।

শুক্রবার চবি কমিটি নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিয়ে নগর আওয়ামীলীগের দুই শীর্ষ নেতার সঙ্গে পদবঞ্চিতদের নিয়ে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনে বিভিন্ন  নামে বগিভিত্তিক রাজনীতি সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করা হলো।’

ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সকল নেতা-কর্মীকে এই বগিভিত্তিক রাজনীতি বর্জন করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয় এই বিজ্ঞপ্তিতে।

বগিভিত্তিক রাজনীতিতে নিজেদের মধ্যে আধিপত্য নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে তা নয়, প্রায় সময় বগিতে নিজেদের নামে আসন দখল, সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতনের অভিযোগও ওঠে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের নামে।

বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ সাধারন শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপু  বলেন, ‘আমাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমাদের নেতাকর্মীরা এ সিদ্ধান্ত মেনে চলতে বাধ্য। কেউ অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

মতামত...