,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম মহানগরীতে মেট্রো-রেল চালু পরিকল্পনা মেয়রের

metro-railনাছির মীর,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাধ্যমে নগরীতে মেট্রোরেল চালু করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীনের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। সিটি মেয়র এই আগ্রহের সঙ্গে সম্মতি জানিয়ে লিখিতভাবে পরিকল্পনা ও প্রস্তাবনা দেয়ার জন্য প্রতিষ্ঠানটির কান্ট্রি ম্যানেজারকে অনুরোধ করেছেন। প্রস্তাবনা পেলে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন স্বাপেক্ষে শীঘ্রই সমাঝোতা স্মারক করারও ইঙ্গিত দিয়েছেন মেয়র।

চীনের প্রতিষ্ঠানটির দাবি, আগামী ৫ বছরের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরীকে মেট্রোরেলের আওতায় আনা সম্ভব। মেট্রোরেল চালু হলে যানজট নিরসনসহ সর্বসাধারণের নির্বিঘ্নে চলাচল সম্ভব হবে বলেও দাবি করেন প্রতিষ্ঠানটি।

চসিক  জানায়, নগর ভবনে সম্মেলন কক্ষে গতকাল চসিক ও চীনের বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ‘সিনোহাইড্রো ব্যুরো এন্ড কো. লি. এর মধ্যে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিনোহাইড্রো ব্যুরো কো. লিমিটেডের কান্ট্রি ম্যানেজার হোয়াং জিং নগরীতে মেট্রোরেল চালুর বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এসময় পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তিনি চীনসহ বিভিন্ন দেশে প্রতিষ্ঠানটির মেট্রোরেল চালুর অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। এসময় মেয়র ‘মেট্রোরেল চালু করা নিয়ে সম্ভাব্যতা যাছাই বা অন্য কোন স্ট্যাডি করা হয়েছে কী না জানতে চান।’ হোয়াং জিং সম্ভাবত্য যাচাই করা হয় নি উল্লেখ করে বলেন, সম্ভাব্যতা যাচাই পূর্বক ৫ বছরের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীকে মেট্রোরেলের আওতায় আনা যাবে।’ মেয়র তার বক্তব্যে আ জ ম নাছির উদ্দীন ‘সিনোহাইড্রোকে লিখিত পরিকল্পনা ও প্রস্তাবনা উপস্থাপনের আহ্বান জানান। পরবর্তীতে প্রস্তাবিত প্রজেক্টে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনক্রমে মেট্রোরেল স্থাপন বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।’

সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘চীনের প্রতিষ্ঠানটি মেট্রোরেল চালুর বিষয়ে আগ্রহী এবং মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে বৈঠক করে তাদের কনসেপ্ট শেয়ার করেছেন। বিভিন্ন দেশে তারা মেট্রোরেল চালু করেছেন সেই অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন। তবে তারা চট্টগ্রামে কোন ধরনের স্টাডি করেনি বলে জানায়। মেয়র তাদেরকে লিখিতভাবে প্রস্তাব দিতে বলেছেন। প্রস্তাব পাওয়ার পর মন্ত্রণালয় যদি অনুমতি দেয় তখন তাদের সাথে সমাঝোতা স্মারক করা হবে। এরপর ধাপে ধাপে বাকি কাজগুলোর অগ্রগতি হবে। যদি মেট্রোরেল চালু করা যায় তার সুফল পাবেন নগরবাসী।

চট্টগ্রাম মহানগরীতে মেট্রোরেলের সম্ভাব্যতা ও এর সুফল সম্পর্কে জানতে চাইলে নগর পরিকল্পনাবিদ প্রকৌশলী আলী আশরাফ  বলেন, ‘যদি গণপরিবহন হিসেবে হয় তাহলে এটা নিশ্চয় উপকারী। এবং সেটায় হওয়া উচিত। কলকাতায় যেটাকে ট্রাম বলা হয় সেটাও কিন্তু গণপরিবহন। জার্মানিসহ আরো অনেক দেশেই শহরের মধ্যে ট্রেন চলে। এখন চীনা প্রতিষ্ঠান যে প্রস্তাবনা দিয়েছে সেটা যদি শেষ পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয় তাহলে ভালই। তবে এর জন্য স্ট্যাডির প্রয়োজন আছে।

চসিকের জনসংযোগ শাখা থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈঠকে সিনোহাইড্রোর কনসালটেন্ট সিরাজুল ইসলাম, ওয়াং কিয়াং, রিঙ্ক ট্রেড সিন্ডিকেট এর পরিচালক মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, মো. জাহাঙ্গীর আলম, আইপিই গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদনান ইমাম, পরিচালক মেজবাহ উদ্দিন, ম্যানেজার কে এম নুরুল্লাহ, আইটি প্রধান শুভ্র দেব কর, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

মতামত...