,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম মহানগরীতে হকারদের শৃঙ্খলায় আনার মেয়রের উদ্যোগ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ৬ সেপ্টেম্বর, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::  চট্টগ্রাম মহানগরীর হকারদের শৃঙ্খলায় আনার জন্য সিটি মেয়রের উদ্যোগ কার্যকর হচ্ছে ।ভাল করে না দেখলে বুঝাই যেতো না মিউনিসিপ্যাল মডেল স্কুলটি আছে। যেখানে হাজারো শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। এই বিশাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ঢেকে রেখেছিল হকারদের দোকান। তারা স্কুলের গেট পর্যন্ত ঘিরে ফেলেছিল।

মঙ্গলবার সেই চিত্র পুরোপুরি পাল্টে গেছে। এখন স্কুলটি খুব ভালভাবে দেখা যায়। বাঁশ এবং ত্রিপল দিয়ে নির্মিত হকারদের দোকানগুলি উঠে গেছে। এখন রিয়াজুদ্দিন বাজারের মার্কেটগুলিও রাস্তা থেকে দেখা যায়।

 সোম ও মঙ্গলবার দুই দিনে নগরীর নিউমার্কেট, স্টেশন রোড, আমতলসহ আশপাশের ফুটপাতে হকারদের স্থায়ী দোকান সরিয়ে ফেলা হয়েছে। বিকাল ৫টার পর সড়ক এবং ফুটপাতে ত্রিপল বিছিয়ে হকারদের পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসতে দেখা গেছে।

সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, আমতল, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মিউনিসিপ্যাল মডেল স্কুলের সামনে, রিয়াজুদ্দিন বাজারের সামনে স্টেশন রোড নিউমার্কেট মোড় এবং আশপাশের হকারদের স্থায়ী দোকানগুলি আর নেই। এখন রিয়াজুদ্দিন বাজারের মার্কেটগুলি ভালভাবে দেখা যায়। দেখা যায় স্টেশন রোডের দুইপাশের মার্কেটগুলিও। হকারদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, সিটি মেয়র উদ্যোগ নিয়েছেন তারা তার আহবানে সাড়া দিয়েছেন। তবে ঈদের ছুটিতে বাড়িতে যাওয়া অনেক হকার এখনো ফিরে আসেনি। যারা এসেছেন তারা বিকাল ৫টার পর পণ্য নিয়ে বসছেন। রিয়াজুদ্দিন বাজারের একাধিক ব্যবসায়ীর সাথে আলাপকালে তারা জানান, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন একটি ভাল উদ্যোগ নিয়েছেন। দিনের বেলা কোনো হকার বসতে পারবে না। কিন্তু নিয়মিত পর্যবেক্ষণ না করলে এই উদ্যোগ ভেস্তে যাবে।

সিটি মেয়র আলহাজ আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, নিউমার্কেট, স্টেশন রোড, আমতল, আন্দরকিল্লা, শহীদ মিনারসহ কোতোয়ালী এলাকার হকারদের শৃঙ্খলায় আনার কাজ গত দুইদিন ধরে শুরু করেছি। হকাররা কথা দিয়েছিলেন তারা নিজ উদ্যোগেই পবিত্র ঈদুল আযহার পর দিনের বেলায় বসবেন না। তারা কথা রেখেছেন।

মঙ্গলবার পর্যন্ত এই এলাকার ৮০ শতাংশ হকার শৃঙ্খলায় এসেছে। বাকিরাও দুই–একদিনের মধ্যে চলে আসবে। শৃঙ্খলার বাইরে কেউ থাকতে পারবে না। তিনি জানান, নগরীর জিইসি মোড়, বহদ্দারহাট, আগ্রাবাদ, ইপিজেডসহ যেসব এলাকায় হকার আছে সবাইকে এই উদ্যোগের আওতায় আনা হচ্ছে। কেউ বাদ পড়বে না।
সিটি ম্যাজিস্ট্রেট সনজিদা শারমিন পূর্বকোণকে বলেন, তালিকাভুক্ত হকারদের সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে আইডি কার্ড দেয়া হবে। কোতোয়ালী থানাধীন তিন হাজার ৪১৬ জন হকারের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আরেকটু যাচাই–বাছাই করা হচ্ছে। যাতে কোন ভুয়া হকার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে না পারে। তাই একটু সময় নিচ্ছি। তিনি জানান, প্রথমে কোতোয়ালী থানাধীন হকারদের দিয়ে শুরু করা হয়েছে। ক্রমান্বয়ে শহরের অন্যান্য এলাকার হকারদের শৃঙ্খলায় আনা হবে।

মতামত...