,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম মহানগরী তিনমাসের মধ্যে সিসিটিভির আওতায়

549নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,৪, জানুয়ারি (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম):: আগামী তিনমাসের মধ্যে সিসিটিভির আওতায় চলে আসবে পুরো চট্টগ্রাম মহানগরী। অপরাধী শনাক্ত করতে নগরজুড়ে লাগানো হচ্ছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসিটিভি)। ইতিমধ্যে নগরীর ২৬ পয়েন্টে ১টি আধুনিক পিটিজেড ক্যামেরাসহ ৯৯টি সিসিটিভি স্থাপন করে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ। । বাকী ক্যামেরাগুলো সাধারণ মানের। আগামীতে আইপি (ইন্টারনেট প্রটোকল) ক্যামেরা লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

নগর পুলিশ কমিশনার বলেন, যেসব ক্যামেরা লাগানো হয়েছে তা নগরবাসীর সহযোগিতায়। সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কারণে অপরাধ আগের চেয়ে তুলনামূলক কম হচ্ছে। ব্যক্তি উদ্যোগেও লাগানো হচ্ছে সিসিটিভি। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে সিসিটিভি লাগানো হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি অত্যাধুনিক ক্যামেরা স্থাপনের। আশা করছি আগামী তিনমাসের মধ্যে পুরো নগরী সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় চলে আসবে। মানুষকে উৎসাহিত করার চেষ্টা করছি। নিজ উদ্যেগেও অনেকে সিসিটিভি লাগিয়েছেন। অত্যাধুনিক ক্যামেরার ব্যবহার প্রসঙ্গে পুলিশ কমিশনার বলেন, অত্যাধুনিক বিভিন্ন ধরনের ক্যামেরা মার্কেটে রয়েছে। বিভিন্ন জনের সহযোগিতায় নগরীতে ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। আধুনিক ক্যামেরা লাগাতে আর্থিক বাজেটেরও বিষয় আছে। আশা করছি কাজ যখন শুরু হয়েছে ক্রমান্বয়ে তাতে আরো উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। একটা নষ্ট হলে আরেকটি লাগানোর সময় আরো আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ ক্যামেরা ব্যবহার করবে মানুষ।
জানা যায়, নগরীর ২৬টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ইতিমধ্যে লাগানো হয়েছে ৯৯টি সিসিটিভি ও ব্যক্তিগত ভাবেও অনেকে সিসিটিভি লাগিয়েছেন। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকার নিউমার্কেটে চারটি, শাহ আমানত গোল চত্বরে চারটি, মুরাদপুর মোড়ে চারটি, আকবরশাহ মোড়ে তিনটি, রাহাত্তারপুর মোড়ে চারটি, চকবাজার মোড়ে চারটি, সাগরিকা মোড়ে তিনটি, অক্সিজেন মোড়ে তিনটি, পিএইচপি স্পিনিং মিল দুইটি, সিটি গেটে তিনটি, কাজীর দেউড়িতে তিনটি, কাপ্তাই রাস্তার মাথায় তিনটি, দেওয়ানহাট ব্রিজ এলাকায় চারটি, সিইপিজেড মোড় চারটি, ইস্পাহানি মোড়ে চারটি, কর্নেলহাটে তিনটি, অলংকার মোড়ে চারটি, বাদামতলিতে চারটি, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আটটি, বড়পুল মোড়ে চারটি, প্রবর্তক মোড়ে চারটি, নিমতলা বিশ্বরোড চারটি, টেরিবাজার মোড়ে চারটি ও সল্টগোলায় চারটি সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। নগর পুলিশের লাগানো এসব ক্যামেরার মধ্যে শুধুমাত্র সিটি গেটে লাগানো হয়েছে আধুনিক পিটিজেড ক্যামেরা। এ ক্যামেরা দিয়ে চলমান বস্তুর বিস্তুৃত দৃশ্যপটের ছবি তোলা জন্য ডানে বামে ঘুরানো যায় এবং ছবি তোলার নির্দিষ্ট বিষয়কে লেন্সের সাহায্যে কাছে ও দূরে আনা নেওয়া করা যায়।
নগরীর ফিরিঙ্গিবাজার, টেরিবাজার আমিরবাগ আবাসিক, বায়েজিদ বোস্তামী মাজার, আমানত শাহ মাজার ছাড়াও বিভিন্ন উঁচু ভবনে ব্যক্তি উদ্যেগে লাগানো হয়েছে সিসিটিভি।
আইসিটি বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ৯৯টি ক্যামেরার মধ্যে সিটি গেট এলাকায় একটি পিটিজেড ক্যামেরা রয়েছে। এটি ৩৬০ ডিগ্রি এঙ্গেলে ঘুরানো যায়। তবে আগামীতে আইপি ক্যামেরা লাগানো হবে নগরীতে। এসব ক্যামেরা ইন্টারনেটের সাহায্যে স্মার্টফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ ও ডেস্কটপে নির্দিষ্ট কোড ব্যবহার করে অপারেটিং করা যাবে অনায়াসে।

মতামত...