,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চমেক হাসপাতালে শিশুচোর চক্ররে ২ নারী গ্রেপ্তার

বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::চুরি করা আড়াই বছরের শিশুকে চিকিৎসা করাতে এসে পুলিশের হাতে ধরা পড়লেন শিশুচোর চক্ররে দুই নারী সদস্য।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ি তাদের আটক করে।

আটক কুলসুমা বেগম বায়েজিদ থানার অক্সিজেনের পশ্চিম সৈয়দনগর এলাকার মহিন উদ্দিনের স্ত্রী। লিজা আকতার (১৮) একই এলাকার বাসিন্দা। দুইজন শিশুটিকে নিয়ে যেতে এসে পুলিশের হাতে আটক হন। চমেক ফাঁড়ির পুলিশ জানায়, গত সোমবার রাতে হাটহাজারীর আড়াই বছরের এক শিশুকে অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উপজেলার চিকদাইর গ্রামের মাকছুদা বেগম শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

মঙ্গলবার সকালে শিশুটির জ্ঞান ফিরে আসে। শিশুটির বিষয়ে মাকছুদা বেগমের কাছে জানতে চাইলে নির্দিষ্ট করে কোনো তথ্য দিতে না পারায় পুলিশের সন্দেহ হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্বীকার করেন, তার বোনের ছেলে এমরান শিশুটি তার কাছে রেখে যায়। অসুস্থ হয়ে পড়লে শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসেন। হাসপাতালে আনার পর বোনের ছেলে-মেয়ে আর খবর নিচ্ছে না।

চমেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানান, মাকছুদার তথ্যের ভিত্তিতে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে শিশু জ্ঞান ফিরে আসা ও সুস্থ হয়ে উঠেছে বলে জানানো হয়। ফোন পাওয়ার পর মাকছুদার বোনের মেয়ে শিশুটিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য আসে। তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনিও শিশুটির বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেনি। তার ভাই এমরান শিশুটি এনেছেন বলে জানান। চুরি করা শিশুটি নিতে আসা মাকছুদার ভাগ্নে কুলসুমা বেগম (৩০) ও লিজা আকতারকে (১৮) আটক করা হয়। আটক দুই মহিলাকে হাটহাজারী থানায় প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আবদুল হামিদ জানান, মাকছুদার বোনের ছেলে এরমান শিশুটিকে চুরি করে খালার বাড়িতে রেখেছিল। মাজার থেকে এনেছে বলে তাকে জানিয়েছে। এমরান, এমরানের বোন ও খালাসহ চারজন এ চুরিতে জড়িত। এরমানকে আটক করতে পারলে চুরি রহস্য উদ্ঘাটন করা যাবে। তবে তাদের ধারণা, মাইজভা-ার বা বার আউলিয়া মাজার এলাকা থেকে শিশুটিকে চুরি করা হয়েছে।

মতামত...