,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে কোটি কণ্ঠে জাতীয় সংগীতঃ বিজয় দিবসে

193নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা, ১৬, ডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম):: মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে কোটি কণ্ঠে জাতীয় সংগীত ও শপথ বাক্য পাঠ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার বিকেল চারটা ৩১ মিনিটে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় সংগীত শুরু হয়। আর তাতে সারাদেশ লাখো মানুষ কণ্ঠ মেলান- ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’।

পরে শপথ বাক্য পাঠ করান অর্থনীতিবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত। এই কর্মসূচিতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে হাজারো মানুষ জড়ো হয়।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমাম, বিশিষ্ট লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার প্রমুখ।

এ বিষয়ে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সহ-সাধারণ সম্পাদক সংগীতা ইমাম বলেন, এটি আসলে কোটি কণ্ঠে হবে। দেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলা এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাঙালিরা একই সময়ে জাতীয় সংগীত গেয়েছেন। সব মিলিয়ে লাখো নয়, কোটি কণ্ঠে সংগীত গাওয়া হয়েছে।

সংগীত ও শপত বাক্য পাঠের আগে অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ পরিবারের সদস্যদের সম্মাননা জানানো হয়।

এর আগে সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক বেলা ১১টায় এবারের বিজয় উৎসবের উদ্বোধন করে একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত পাকিস্তানি সেনা সদস্যদের বিচারের দাবি জানান।

সেই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থাপনাগুলো সংরক্ষণেরও দাবি জানান তিনি।

এরপর বেলা সাড়ে ১১টা থেকে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘আমাদের সংস্কৃতি’। বিকেল সাড়ে তিনটায় ছিল জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন পর্ব।

বিকাল চারটা ৩১ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবেশন শেষে হয় ‘আগামী বাংলাদেশের শপথ’। শপথবাক্য পড়ান বিজয় দিবস উদযাপন জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আবুল বারকাত।

এরপর স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পীদের কণ্ঠে মুক্তিযুদ্ধের গান পরিবেশন শেষে আঁতশ বাজির খেলায় ‘বিজয় সন্ধ্যা’ উদযাপনেরও কর্মসূচি রয়েছে।

সবশেষে রাত ১০টা পর্যন্ত বিজয় মঞ্চে চলবে দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ডদলের অংশগ্রহণে ‘কনসার্ট ফর ফ্রিডম’।

চট্টগ্রামে কোটি কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে বাংলাদেশের ৪৪তম বিজয় দিবসে কোটি কণ্ঠ গেয়ে উঠল আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি।

বুধবার বিকাল ৪টা ৩১ মিনিটে সারা দেশে একযোগে জাতীয় সংগীত গাওয়া হয়।

এদিকে,  বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটি ও গণজাগরন মঞ্চের আহ্বানে বিশ্বব্যাপী কোটি কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম নগরীর চেরাগী পাহাড় মোড়ে একযোগে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছে গণজাগরন মঞ্চ।

সমাবেত জাতীয় সংগীত পরিবেশন অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামে গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়ক শরীফ চোহান, রাশেদ হাসান, ডা. সিরাজুল ইসলাম, ডা. চন্দন, সুনীল ধর জেলার বিভিন্ন এলাকার মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, উদীচী ও গনজাগরন মঞ্চের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া শেষে উপস্থিত নেতা কর্মীদের ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিতে থাকে। এসময় ‘জয়বাংলা’ স্লোগানে এলাকা মুখরিত হয়ে উঠে।

 

মতামত...