,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জঙ্গি নিয়ে কৌতুক করছেন খালেদা জিয়া: আওয়ামী লীগ

573নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,২৮, ডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম):খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। সোমবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে তিনি বলেন, ‘জঙ্গি উত্থানের দায় আওয়ামী লীগের উপর চাপিয়ে খালেদা জিয়া কৌতুক করেছেন।’

‘সেভেন মার্ডারের আসামি এবং আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে এমন নেতাকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে খালেদা জিয়া আবারো প্রমাণ করলেন তিনিই জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষক এবং বাংলাদেশে জঙ্গি উত্থানের মূল হোতা’, বললেন আওয়ামী লীগের এ নেতা।

জঙ্গি নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন তার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল মেয়াদের শাসনকালে দেশে পবিত্র ইসলাম ধর্মের অপব্যাখ্যা করে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছিল। কিন্তু তারা সেই জঙ্গিদের দমন না করে বিরোধী দলের উপর দোষ চাপিয়ে নির্যাতন চালানোর পথ বেছে নিয়েছিল। আমরা পরবর্তীকালে সেই জঙ্গিবাদকে সাফল্যের সঙ্গে দমন করতে পেরেছিলাম। বাংলাদেশে বিলুপ্তপ্রায় জঙ্গিবাদীরা এখন আবারো নতুন শক্তিতে সংগঠিত হয়েছে কি না এবং তাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের যোগসূত্র স্থাপিত হয়েছে কি না, তা নিয়ে সবখানে সংশয় ও উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছে।’

আওয়ামীলীগের আমলে জঙ্গীবাদের উত্থান হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এমন অভিযোগের জবাব দিতে গিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়া এমন অভিযোগ তুলে তিনি দেশের মানুষের সাথে কৌতুক করেছেন। মুলত খালেদা জিয়া বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের প্রধান পৃষ্টপোষক। শুধু বাংলাদেশ নয় আন্তর্জাতিকভাবে জঙ্গীবাদের যে নেটওয়ার্ক রয়েছে সেই নেটওয়ার্কেরও অন্যতম পৃষ্ঠপোষক বেগম খালেদা জিয়া।

বেগম খালেদা জিয়া তার পাশে জঙ্গী নেতাদের সাথে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে জঙ্গী উত্থানের অভিযোগ তুলেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ২১ আগষ্টের গ্রেণেড হামলাসহ বাংলাদেশ যতগুলো বোমা হামলা ও জঙ্গী হামলার ঘটনা ঘটেছে সবগুলো ঘটনাই ঘটেছে খালেদা জিয়ার শাসনামলে। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জঙ্গী পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগ প্রমাণিত।

পৌর নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়া প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সংসদ নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল। মূলত সেই অনুধাবন থেকে বিএনপি পৌর নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। নির্বাচনে অংশ নেয়ার মাধ্যমে খালেদা জিয়ার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে। এ জন্য আমরা খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানাই, সাধুবাদ জানাই। একই সাথে সাথে আশা করি করবো নির্বাচনের দিন সকাল ১১টায় নতুন কোন অভিযোগ তুলে নির্বাচন থেকে সরে দাড়াবেন না।’

এসময় চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন উপস্থিত ছিলেন।

মতামত...