,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জমি’র নামজারি, জমাখারিজ ও জমা একত্রিকরণ কিভাবে করবেন ? জেনে নিন

bnr ad 250x70 1

মুখলেছুর রহমান, তাড়াইল (কিশোরগঞ্জ) সংবাদদাতা,বিডিনিউজ রিভিউজঃ বাংলাদেশে ভূমি নিয়ে বিরোধে ভোগেন না এমন মানুষ একজনও খুঁজে পাওয়া যাবে না। এই বিরোধ ও ভূমি সংক্রান্ত ঝামেলা থেকে মুক্ত থাকতে নামজারি, জমাখারিজ ও জমা একত্রিকরণ করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি জানা থাকলে আপনার জমি সংক্রান্ত ঝামেলা থেকে অনেকাংশেই মুক্ত ও নিশ্চিত থাকতে পারেন।

নামজারি মানে: আপনি যার কাছ থেকে জমি কিনলেন তার নাম কর্তন করে আপনার নাম রেকর্ডভুক্ত করুন।

জমাখারিজ মানে : আপনি যদি একান্নভূক্ত পরিবারের সদস্য অথবা অনেকের সঙ্গে একত্রে আপনার নামে ভূমি রেকর্ড হয়ে থাকলে তা আপনাকে আলাদা করে ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের স্বার্থে আলাদা আপনার নামে রেকর্ডভুক্ত করতে হবে।

জমাএকত্রিকরণ মানে: একই মৌজায় আপনার নামে অনেকগুলো খতিয়ান থাকলে সেই সবগুলো খতিয়ানের সম্পত্তি একত্রে একটি খতিয়ান আপনার নামে খোলা।

কেন করবেন: নামজারি, জমাখারিজ ও জমা একত্রিকরণ করলে আপনার জমির স্বত্ব দখল সম্পর্কে নিশ্চিত হবেন। আপনার জমি আপনার অজান্তে অন্য কেউ বিক্রি করতে পারবে না। যেহেতু আমাদের দেশের ভূমি নিয়েই বিরোধ বেশি সেজন্য আপনি যদি নামজারি না করেন তাহলে আপনার অজান্তে আপনার জমি আরেকজন শত্রুতাবশত ক্রয়সূত্র দেখিয়ে নামজারি করে তার স্বত্ব প্রতিষ্ঠিত করতে পারে। এক্ষেত্রে আপনার ভোগান্তি বেশি হবে। এজন্য নামজারি, জমাখারিজ ও জমা এত্রিকরণ করা আব্যশক।

কিভাবে করবেন: আপনার উপজেলার, উপজেলা ভূমি অফিসে গিয়ে একটি আবেদন ফরম পাবেন (বিনামূল্যে) অথবা ইন্টারনেটে (www.minland.gov.bd) ওয়েব সাইট থেকে ডাউনলোড করে সংগ্রহ করতে পারেন। এর মধ্যেও বিস্তারিত নিয়ামবলী লেখা আছে।

কি কি কাগজপত্র লাগবে: প্রথমে আপনাকে সর্বশেষ জরিপের রেকর্ড হতে ধারাবাহিকভাবে আপনার মালিকানা প্রমাণ করতে হবে। এক্ষেত্রে (বায়া দলিল, বন্টননামা দলিল, চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত ওয়ারিশ সনদ, মোকদ্দমাভূক্ত জমির ক্ষেত্রে ডিক্রির সার্টিফাইড কপি, পাসপোর্ট সাইজের আবেদনকারীর এক কপি ছবি ও অন্যান্যগুলোর সত্যায়িত ফটোকপি) এবং খাজনা চেক জমা দিতে হবে। দখল থাকতে হবে। তবে পূর্বের খাজনা পাওনা থাকলে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি অফিসে গিয়ে খাজনা পরিশোধ করে দাখিলা গ্রহণ করে তা অন্যান্য কাগজপত্রসহ ইউনিয়ন ভূমি অফিসে জমা দিয়ে জমা খারিজের জন্য আবেদন করতে হবে।

খরচ: নামজারি করতে আপনার ২৫০/- থেকে ২৭০/- টাকা খরচ হবে। আপনি যত টাকা ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও উপজেলা ভূমি অফিসে জমা দিবেন ঠিক তত টাকার দাখিলা ডি.সি.আর বুঝে নিবেন এবং যে যে খাতে টাকা জমা দিবেন তার রশিদ অবশ্যই নিবেন। রশিদ ব্যতীত কোন টাকা দিবেন না। রশিদ ছাড়া অতিরিক্ত টাকা কেহ দাবী করলে সংশ্লিষ্ট সহকারি কমিশনার (ভূমি). উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সঙ্গে যোগাযোগ ও পরামর্শ করতে পারেন। সকল প্রকার কাগজপত্রসহ আবেদন করার ৪৫ কার্য দিবসের মধ্যে আপনার ভূমির (যদি জটিল কোন ঝামেলা না থাকে) নামজারি, জমাখারিজ ও জমা একত্রিকরণ সম্পন্ন হয়ে যাবে।

সর্বশেষ প্রকার পরামর্শ বুঝতে অসুবিধা হলে তা সংশ্লিষ্ট সহকারি কমিশনার (ভূমি)-এর কাছ থেকে বুঝে নিতে পারেন। উপরোক্ত বিষয়াদি সঠিকভাবে পূরণ করে আপনি আপনার জমির স্বত্ব ও দখল সম্পর্কে নিশ্চিত থাকতে পারেন।

মতামত...