,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জাপায় রওশনপন্থিরা কোণঠাসা!

Ershad3মীর মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন সিকদার,০২ ফেব্রুয়ারি (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::  জাতীয় পার্টিতে নানান ঘটনা আর অঘটনের পর একটি কঠিন ও ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এই প্রথম দলের আনুষ্ঠানিক মুখপাত্র নিযুক্ত করলেন নবনিযুক্ত কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের (জিএম কাদের) এবং মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার কে ! পদের পাশাপাশি মুখপাত্র হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করবেন তারা। এরশাদের এ সিদ্ধান্তের ফলে এখন থেকে বিচ্ছিন্নভাবে কোনো নেতার বক্তব্য আর পার্টির বক্তব্য বলে গণ্য হবে না।

এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বলছেন, এত দিন পার্টির মধ্যে যে ধোঁয়াশা কাজ করছিল তা তিরোহিত করলেন এরশাদ।ফলে,পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্যরা একেকজন একের ধরনের যে বক্তব্য দিয়ে থাকেনএবং তাতে  দলের ভেতরে বাইরে যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতো তা দূর হল। দলের মুখপাত্র নিযুক্ত হওয়ায় পার্টির বক্তব্য, সিদ্ধান্ত ও অবস্থান দেশের মানুষ সহজেই বুঝতে পারবে যা মঙ্গলজনক এবং এখন শজেই কেউ বিভ্রান্ত হবেনা।

 

সোমবার জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং পার্টির চেয়ারম্যানের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভরায় বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে বলেন, “এখন থেকে জিএম কাদের অথবা এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার মিডিয়াতে পার্টি সম্পর্কে বক্তব্য দেবেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ পার্টির এই দায়িত্ব দিয়েছেন। বিচ্ছিন্নভাবে কারো মন্তব্য, বক্তব্য বা বিবৃতি (কখনো কখনো নাম প্রকাশ না করার শর্তে) জাতীয় পার্টির বক্তব্য বলে বিবেচিত হবে না।”

এরশাদ-রওশন দ্বন্দ্ব ক্রমেই বেড়েই চলছিল সরকারে যোগ দেয়ার পর থেকেই । এতদিন রওশনের নেতৃত্বাধীন অংশের সরকারের তোষামোদি অন্যদিকে চেয়ারম্যানের কথায় নির্বাচনে অংশ না নেয়া বঞ্চিত অংশের চাপ বিস্ফোরণ ঘটলো যা রওশনের পন্তিদের হঠাৎ করে কোন ঠাসা করে দিলো।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সিলেট থেকে হঠাৎ জিএম কাদেরকে নিজের উত্তরসূরী ও মহাসচিব পদে পরিবর্তনের ঘোষণার মাধ্যমে জাপার এই বিস্ফোরণ রাজনৈতিক অঙ্গনে খানিকটা নাড়া দিয়েছে বি কি! রবিবার পার্টির প্রেসিডিয়াম সভায় তা অনুমোদন করার একদিন পরই ওই দুইজনকে পার্টির মুখপাত্র হিসেবে দায়িত্ব দেয়ার কথা ঘোষণার পর রওশনের আশ্রয়ে সরকারের সুবিধা ভোগ করে আসা গ্রুপটি এক প্রকার কোণঠাসা হয়ে পড়ে।

জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সোহেল রানা বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে বলেন, দীর্ঘদিন আমাদের পার্টিতে মুখপাত্র ছিল না, যেমনটি আওয়ামী লীগে মাহবুব-উল আলম হানিফ, বিএনপির রুহুল কবির রিজভী রয়েছেন। তারা যেটা বলছেন পার্টির মুখপাত্র হিসেবে বলছেন। জাতীয় পার্টিতে সেধরনের ব্যাপার ছিল না। না থাকার ফলে আমি ব্যক্তিগতভাবে অনেক আগে থেকেই স্যারকে  বলে আসছিলাম, আপনি সবসময় মিডিয়া ফেস করতে পারে না। আমাদের একজন একেক সময় কথা বলছে।

জাপার এই পরিবর্তন সকলেই ইতি বাচক ভাবেই দেখছেন। এখন দেখাযাক সামনে জাপার পথ চলা কেমন হয়।

 

মতামত...