,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জামায়াত শিবির আর জঙ্গিরা একই সূত্রে গাঁথা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

a.রংপুর সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ আমাদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে দিয়ে ইসলামকে একটা অকার্যকর ধর্মে পরিণত করার জন্য এ প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে অভিযোগ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আবারও বললেন, দেশে কোনও আইএস নেই। আমি টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া, প্রত্যেকটি জেলা, উপজেলায় ঘুরে বেড়াচ্ছি। আমিতো কোথাও আইএস দেখছি না। তাদের কোনও নেতা দেখছি না।

শনিবার দুপুরে রংপুর পুলিশ লাইন মাঠে রংপুর বিভাগীয় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী সর্ব ধর্মীয় সম্প্রীতির সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জামায়াত শিবিরের নেতাদের পৃষ্টপোষকতায় জঙ্গিরা তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। তারা দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য একের পর এক ঘটনা ঘটাচ্ছে।  তবে এবারও তারা ব্যর্থ হবে। এদেশের জনগণ তাদের শুধু প্রতিরোধ নয় চিরদিনের মতো নির্মূল করবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, দেশে যখন উন্নয়ন ও  শান্তির সুবাতাস বইতে শুরু করেছে তখনই ঢাকায় ইতালির নাগরিক তাবেলা সিজার রংপুরে জাপানি নাগরিক হোচি কুনিওকে হত্যা করা হলো। এরপর পঞ্চগড়ে ইস্কন মন্দিরে হামলা চালিয়ে মন্দিরের পুরোহিতকে হত্যা, পার্বত্য চট্রগামে বৌদ্ধ ভিক্ষুককে হত্যা, বগুড়ায় নামাজ আদায়রত অবস্থায় শিয়া মসজিদে হামলা চালিয়ে মোয়াজ্জিনসহ দুজনকে হত্যা করা হয়েছে। তবে আমাদের আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী সব ঘটনার রহস্য উদঘাটন করে খুনিদের পাকড়াও করতে সক্ষম হয়েছে। সবাইকে বিচারের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকার গুলশানে জঙ্গিরা বেশ কয়েকজন বিদেশী নাগরিক ও পুলিশকে হত্যা করেছে। এরপর তারা শোলাকিয়ায় ঈদের জামায়াতে হামলা চালিয়ে দুই পুলিশসহ তিনকে হত্যা করেছে। তারা মাওলানা মাসুদকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল।

তিনি আরও বলেন, এই আগস্ট মাসে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে স্বপরিবারে হত্যা এবং ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। তিনি মহান আল্লাহ তায়ালার রহমতে রক্ষা পেয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জঙ্গিবাদ নিমূলে আলেম ওলামা ও অন্য ধর্মের লোকদের নিয়ে পাড়া মহল্লায় শান্তি -সম্প্রীতি সমাবেশ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন,  নিজেদের বাড়ি থেকে এ কার্যক্রম শুরু করতে হবে। সন্তানদের প্রতি অভিভাবকদের আরও বেশি নজর দিতে হবে। তিনি অপরিচিত কাউকে দেখলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে খবর দেওয়ার আহ্বান জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খুলনায় জঙ্গি সংগঠন হিযবুত তাহরির চার জঙ্গি নিজেদের ভুল বুঝে ফিরে এসেছে। তারা ভুলের জন্য তওবা করেছে। তাদের মতো আরও অনেক জঙ্গি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য যোগাযোগ করছে। প্রধানমন্ত্রী এর আগে অনেকবার তাদের ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। এ পর্যন্ত যে সব জঙ্গি নিহত হয়েছে তাদের লাশ নিতে বাবা-মায়েরা রাজি হননি। বাধ্য হয়ে তাদের বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করতে হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জঙ্গি হামলায় নিহতদের মামলাগুলো সন্ত্রাস দমন আইনে নয়, সাধারণ আইনে বিচার হবে বলে জানান।

সমাবেশে জনতার দাবির মুখে তিনি বলেন, রংপুরে অচিরেই মেট্রোপলিটান সিটি হিসেবে কার্যক্রম শুরু হবে। রংপুর রেজ্ঞের পুলিশের ডিআইজি গোলাম ফারুখের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সি, স্থানীয় সরকার ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিয়ার রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি মেয়র শরফ উদ্দিন আহাম্মেদ ঝন্টু, পুলিশের আইজি একেএম শহিদুল হক, শোলাকিয়ার ইমাম ও বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসুদ, ঢাকার ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের মাওলানা ইবরাহিম, ঢাকার রাম কৃষ্ণ মিশনের ধুরুবেশা নন্দ মহারাজ, দিনাজপুরের খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের বিশপ সেবাসতিয়ান প্রমুখ।

 

মতামত...