,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জ্বালানী ক্ষেত্রে সাস্ত্রয়ী নীতি অবলম্বনে সফলতা অর্জন করতে পারি: প্রতিমন্ত্রী নছরুল হামিদ

gনজরুল , গোলাপগঞ্জ (সিলেট),বিডিনিউজ রিভিউজ.কম: গোলাপগঞ্জের তেল-গ্যাস ক্ষেত্র গুলো পরিদর্শন করলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নছরুল হামিদ। তিনি গতকাল শুক্রবার বিকেলে গোলাপগঞ্জ কৈলাশটিলা গ্যাস ফিল্ডের ৭টি কূপ পরিদর্শনের পাশাপাশি রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানী ও এলপিজি প্ল্যান্ট পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে বিশেষ বৈঠকে মিলিত হয়ে প্ল্যান্ট গুলোর উৎপাদন বিষয়ে অবহিত হয়ে তিনি বলেন, তেল-গ্যাস জাতীয় সম্পদ। এ সম্পদ সুষ্ঠ ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা অনেক লাভবান হতে পারি। বাংলাদেশের চাহিদার তুলনায় তেল-গ্যাসের ক্ষেত্র পর্যাপ্ত নয়। ক্রমশঃ গ্যাসের মজুদ কমে আসছে। আমরা এ ক্ষেত্রে সাস্ত্রয়ী নীতি অবলম্বনের মাধ্যমে জ্বালানী ক্ষেত্রে আরো সফলতা অর্জন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষের বিদ্যুতের চাহিদা পুরনে বাংলাদেশ সরকার যে সব পদক্ষেপ গ্রহন করেছে তা বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশে বিদ্যুতের ঘাটতি থাকবে না। চলমান বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র গুলো থেকে অভাবনীয় বিদ্যুৎ উৎপাদনের সু-সংবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা জ্বালানী ক্ষেত্রে আরও বেশী অগ্রসর হতে চাই। এ সময় তিনি বলেন, সরকারী সিদ্ধান্তের আলোকে আগামীতে জ্বালানী তেলের মূল্য হ্রাস হতে পারে।
দেশের অন্যতম সিলিন্ডার গ্যাসের প্ল্যান্ট গোলাপগঞ্জ এলপিজি প্ল্যান্টের মেয়াদ উত্তীর্ণ বোতলের বেহাল অবস্থা দেখে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এলপিজি প্ল্যান্টের বিভিন্ন অনিয়মের বিষয়ে মন্ত্রী আগ থেকেই অবহিত হলে তিনি প্ল্যান্টের বিভিন্ন কার্যক্রমে অসন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যায়। বিশেষ করে ঝুঁকিপূর্ণ বোতল গুলোর ছবি সংগ্রহ করার জন্য তার ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফারকে নির্দেশ দিয়ে বলেন, এগুলো উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দেখানো দরকার।
বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নছরুল হামিদ আসছেন, বিষয়টি গোলাপগঞ্জের গ্যাস ক্ষেত্র গুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়া কেহ জানেননি। এমনকি প্রশাসনও অবহিত ছিলেন না বলে একটি বিশেষ সূত্রে জানা যায়। গোলাপগঞ্জে ৭টি তেল-গ্যাস কূপ থাকার পরও উপজেলার বেশীর ভাগ জনগণ জ্বালানী গ্যাস সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এছাড়া গ্যাস সুবিধার আওতাভূক্ত এলাকা গুলোতেও বিশেষ নিষেধাজ্ঞার কারনে জ্বালানী গ্যাস সংযোগ দেয়া হচ্ছে না। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জের মানুষ মন্ত্রীকে কাছে পেয়েও তাদের বক্তব্যটি তুলে ধরার সুযোগ না পাওয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করলেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলতাফ হোসেন, সিলেট গ্যাস ফিল্ডের এমডি মিজান শরিফুল ইসলাম, আরপিজিসিএল’ও এমডি কারুজ্জামান, জিএম মার্কেটিং হারুন অর রশীদ মোল্লা, জিএম অপারেশন আমির হোসেন, কৈলাশটিলা গ্যাস ফিল্ডের ডিজিএম আব্দুল জলিল প্রামানিকসহ বিভিন্ন জ্বালানী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ।

মতামত...