,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

জয় হত্যার ষড়যন্ত্রে সাংবাদিক শফিক ও মাহমুদুর রহমান জড়িতঃপ্রধানমন্ত্রী

h2নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ ঢাকা,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সজীব ওয়াজেদ জয়কে হত্যার ষড়যন্ত্র হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে। সে দেশের আদালতেই এটি প্রমাণিত হয়েছে। এ ষড়যন্ত্রের সাথে সাংবাদিক শফিক রেহমান ও মাহমুদুর রহমানের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিক শফিক রেহমানকে গ্রেফতার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অপরাধীকে গ্রেফতার করলেও অপরাধ হয় এখন। যদি অপরাধীকে গ্রেফতার করলেই অপরাধ হয়, তাহলে এদেশে বিচার কী করে হবে? তাহলে দেশে কোনো হত্যার বিচার কী করে হবে? তারা সাংবাদিক দেখলো, দেখলো না অপরাধী।

শেখ হাসিনা এসময় দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে প্রমাণিত একটি বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে গিয়েও আমাদের সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে। ষড়যন্ত্রও হচ্ছে আমাদের বিরুদ্ধে, আর সমালোচনারও শিকার আমরা। ষড়যন্ত্র করলে তাদের কিছু করা যাবে না? সবার মানবাধিকার আছে, আমাদের কোনো মানবাধিকার নেই। শুধু আওয়ামী লীগের মানবাধিকার নেই, আক্ষেপের সুরে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অপরাধীকে ধরায় এখন যেমন সমালোচনা হচ্ছে ঠিক একই কাজ হয়েছিল ৭৫ সালে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে, খুনিদের বিচারের পথ রুদ্ধ করে। অন্যায় ও ষড়যন্ত্রকারীদের জন্য সাংবাদিকদের মায়াকান্না দেখছি, যারা মায়াকান্না করছেন, তাদের তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতকে জিজ্ঞাসা করতে হবে, বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যেখানে অন্যায় দেখি সেখানেই বিচার করি। আমাদের লক্ষ্য ন্যায়নীতি প্রতিষ্ঠা করা। আমাদের কাজ হচ্ছে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। যারা এখন বড় বড় কথা বলছে, তারা কীভাবে তাজা মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে মারলো। এখন যারা মানবাধিকারের কথা বলে, তারা তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেইবা কী করে? প্রশ্ন তোলেন শেখ হাসিনা।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর পুত্র ও তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যার পরিকল্পনা মামলায় আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেছে পুলিশ।

দুপুরে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এ আবেদন করা হয়। রিমান্ড আবেদনের শুনানি আগামী ২৫ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত। মামলাটিতে মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতার দেখানো হয়। একই মামলায় ৫ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন লেখক ও সাংবাদিক শফিক রেহমান।

বি এন আর/০০১৬/০০৪/০০১৮/০০০৫৪২৫/এন

মতামত...