,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. জুয়েল রানা বরখাস্ত

high courtনিজস্ব  প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ  প্রধান বিচারপতি সম্পর্কে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং শিষ্টাচার বহির্ভূত, অশালীন, অসংযত ও মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করায় ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. জুয়েল রানাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আইন মন্ত্রণালয় তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে এ সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক।

একইসঙ্গে জুয়েল রানাকে বিচার কাজ থেকে প্রত্যাহার করে মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সূত্র জানায়, ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-৫ এর বিচারক জুয়েল রানার বিরুদ্ধে দুটি দেওয়ানি মামলায় অনিয়ম, জালিয়াতি ও দুর্নীতির এবং দুটি দেউলিয়া মোকদ্দমা পরিচালনায় অস্বাভাবিক কার্যক্রমের অভিযোগের সত্যতা প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, তার বিরুদ্ধে দুটি দেওয়ানি আপিল ২৩৮/১২, ২৩৯/১৩, দেউলিয়া মোকদ্দমা নং ১৭/০৩ ও ১৬/২০০০ পরিচালনার ক্ষেত্রে তার দক্ষতা ও সততা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। একজন অতিরিক্ত জেলা জজ পদমর্যাদার কর্মকর্তা হয়ে আরজি খারিজের বিরুদ্ধে আপিল নিষ্পত্তির ক্ষেত্র দীর্ঘ বিচারিক জীবনের অভিজ্ঞতা ও প্রশিক্ষণকে কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছেন।

প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে গত মে মাসে সুপ্রিম কোর্টের জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কমিটি (জিএ কমিটি) বিষয়টি পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদকে তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করতে বলা হয়।

 তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের বিষয়ে নেয়া সিদ্ধান্ত প্রধান বিচারপতি ও জিএ কমিটির সদস্যগণ রাগ বিরাগের বশবর্তী হয়ে নিয়েছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দেন। জুয়েল রানার এই চিঠির বিষয়ে গত ২৮ মে সুপ্রিম কোর্টে জিএ কমিটির বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে জিএ কমিটি এ ধরনের চিঠি লেখাকে ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও শিষ্টাচার বহির্ভূত হিসেবে উল্লেখ করে। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে যেসব দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে সেজন্য তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করতে বলা হয়।

জিএ কমিটির ওই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার আইন মন্ত্রণালয় এ প্রজ্ঞাপন জারি করে। এতে বলা হয়, জুয়েল রানা জিএ কমিটির সদস্যগণকে আন্ডারমাইন করে দরখাস্ত দাখিল করে অসদাচরণ করেছেন। ফলে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগসূমহ গুরুতর।

 

মতামত...