,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

তনু ধর্ষণের আলামত মেলেনি পিএম রিপোর্টে

নিজস্ব  প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃকুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায়নি।

এমনটিই বলা হয়েছে তনুর প্রথম ময়নাতদন্তের রিপোর্টে। এমনকি কোন রাসায়নিক ক্রিয়ায় তার মৃত্যু হয়নি।

তনুর লাশের প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন তৈরির দায়িত্বে থাকা কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. কামতা প্রসাদ সাহা সোমবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মার্চ রাত সাড়ে ১০টার দিকে সোহাগীর লাশ সেনানিবাসে তাদের বাসার দুই-তিন শ গজ দূর থেকে উদ্ধার হয়। খুন করার আগে হত্যাকারীরা তনুর মাথার লম্বা চুল কাঁচি দিয়ে কেটে ফেলে।

তনু হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তাঁর বাবা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের কর্মচারী ইয়ার হোসেন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের নামে কোতোয়ালি মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। এখন এ মামলার তদন্ত করছে সিআইডি।

গত ২১ মার্চ কুমিল্লা সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনুর প্রথম ময়নাতদন্ত হয়। এর পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ভিসেরা পাঠানো হয়। ভিসেরা  রোববার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আসে। কুমিল্লা ফরেনসিক ও মেডিসিন বিভাগের প্রভাষক শারমিন সুলতানা তনুর প্রথম ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দাখিল করেন।

প্রথম ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন সম্পর্কে সোমবার কামদা প্রসাদ সাহা সাংবাদিকদের বলেন, তনুকে ধর্ষণের কোন আলামত পাওয়া যায়নি। কোন রাসায়নিক ক্রিয়াও তনুর মৃত্যু হয়নি। প্রথম প্রতিবেদন বিবেচনায় নিয়ে দ্বিতীয় প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্তের জন্য তনুর লাশ কবর থেকে তোলা হয়।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন জানান, কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. কামতা প্রসাদ সাহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম তনুর লাশের আলামত সংগ্রহ করেন। পরে তনুর লাশ আবার আগের কবরে দাফন করা হয়।

বি এন আর/০০১৬/০০৪/০০৪/০০০৪৭৯৫/ এন

মতামত...