,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদককে অপসারণ দাবি

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম,ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে টাকা নিয়ে বিএনপি-জামায়াত নেতাদের নৌকা প্রতীক দেওয়ার অভিযোগ এনে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসলেম উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানকে অপসারণ দাবি উঠেছে।

রোববার বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান কর্ণফুলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চট্টগ্রাম চেম্বারের সহসভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ।

ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি- সাধারণ সম্পাদকের মনোনয়ন বাণিজ্যের প্রতিবাদে কর্ণফুলী ও আনোয়ারা থানা আওয়ামী লীগ যৌথভাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

bnr adলিখিত বক্তব্যে সৈয়দ জামাল বলেন, গত ১১ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইউনিয়ন কমিটি ওয়ার্ড কমিটির নেতাদের সঙ্গে বর্ধিত সভা করে একজন প্রার্থীর নাম সুপারিশ করবে। সেটা জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক যে ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে সেই্ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক সমন্বয়ে গঠিত নির্বাচনী বোর্ড দলের কেন্দ্রিয় কার্যালয়ে পাঠাবে।

৪ এপ্রিল দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার ও মনোনয়ন সভার বিষয়ে অবহিত করেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই চিঠি দলীয় সিদ্ধান্তের সম্পূর্ণ পরিপন্থি ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

তিনি বলেন,‘সাথে সাথেই আমরা প্রতিবাদ জানাই। তাদের অসৎ উদ্দেশ্য আঁচ করতে পেরে আনোয়ারা-কর্ণফুলী থানার মনোনীত প্রার্থীদের তালিকা কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেই। আমাদের প্রতিবাদ সত্ত্বেও দলীয় কার্যালয়ে সাক্ষাৎকারের আয়োজন করে। বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা প্রতিবাদ জানাতে গেলে তাদের উপর হামলা করা হয়।’

উপজেলা ও থানা নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এক্ষেত্রে দলীয় মনোনয়ন প্রদান পদ্ধতি সুষ্ঠুভাবে অনুসরণ করা হয়েছে। ফলে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের এ বিষয়ে কোন বক্তব্য থাকতে পারে না।

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে যথাযথ ভূমিকা রাখবেন না আশঙ্কা করে সৈয়দ জামাল বলেন, তারা মূলত জামায়াত-বিএনপি সমর্থকদের কাছে মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছেন।

মনোনয়ন ফরম বিক্রির কোন বিধান নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, মূলত মনোনয়ন বাণিজ্যের উদ্দেশ্যেই তারা দলীয় মনোনয়ন প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

‘আমরা আশা করছি সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের দায়ে অবিলম্বে তাদের দলীয় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি ও বহিস্কার করা হবে। এ বিষয়ে আমরা শিগগির কেন্দ্রে আবেদন জানাব।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত কর্ণফুলী থানার চরলক্ষ্মা ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রার্থী নাজিম উদ্দিন হায়দার বলেন, তৃণমূলের ভোটে আমি চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনীত হয়েছিলাম। কিন্তু তৃণমূলের মতামতকে উপেক্ষা করে জামায়াতের অর্থদাতা মোহাম্মদ আলীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান, আনোয়ারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল হক চৌধুরী, কর্ণফুলী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হায়দার আলী রনি, দক্ষিণ জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার ইসলাম আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

মতামত...